অপেক্ষা করতে বলেছিলেন দর্শকদের, ফিরে এলেন না ইরফান

সুহৃদ দাস

অপেক্ষা করতে বলেছিলেন গুণমুগ্ধ দর্শককে। তিনি ফিরে আসবেন আবার। তার অভিনীত শেষ ছবি ‘আংরেজি একাডেমি’র প্রমোশনে তিনি থাকতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতা শেষপর্যন্ত তার শরীরকে টেনে নিয়ে যেতে পারেনি। অভিনেতা ইরফান খান সেই বিষয়ে একটি লম্বা টুইট করেছিলেন। সেখানেই লিখেছিলেন, শারীরিক অসুস্থতা কাটিয়ে তিনি ফিরে আসবেন দর্শকদের সামনে।

সেই অপেক্ষা সারা জীবন থেকে যাবে দর্শকদের। চিরঘুমে চলে গেলেন বলিউডের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা ইরফান খান। বুধবার বেলা ১১ টায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। তার মৃত্যুর খবর আপ্ত সহায়ক – এর মাধ্যমে জানা যায়। ঝড়ের গতিতে সেই খবর আসমুদ্রহিমাচল ছড়িয়ে পড়েছে। পাশাপাশি প্রায় প্রত্যেকেই প্রথমে বিশ্বাস করেছেন, এই খবর আসলে গুজব মাত্র। কিন্তু অন্যান্য ক্ষেত্রে যে গুজব শেষপর্যন্ত ‘গুজব’ হিসেবে স্বীকৃতি পায়, এবার তা হল না।

লাইট, ক্যামেরা, অ্যাকশন থেকে ছুটি নিলেন অভিনেতা ইরফান খান। তিন খান বলিউড কাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন আজও। তাদের পাশাপাশি অন্যতম হয়ে উঠেছিলেন এই ইরফান। তবে শাহরুখ, সলমন, আমির এই তিন খানের গণ্ডির মধ্যে কখনই অভিনয়ের অবস্থানে তিনি আসতে চাননি। তার ব্যক্তিস্বত্তা তৈরি করেছিল এক নতুন অভিনয় ভাবনাকে। এক সাক্ষাৎকারে ইরফান বলেছিলেন, তিনি অভিনয় কি করে করতে হয় তা আদৌ জানেন না। আসলে তার অভিনীত প্রত্যেকটি চরিত্র হয়ে উঠেছিল এক একটি জীবন্ত অধ্যায়।

ভারতীয় সিনেমায় ১৯৮৮ সালে প্রথম তিনি আত্মপ্রকাশ করেন। ‘সালাম বোম্বে’ আজও ভারতীয় সিনেমার অন্যতম মাইলস্টোন। পাশাপাশি ইরফান খান হয়ে উঠেছিলেন ভারতীয় সিনেমার অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। তারপর এক এক করে ছবি মুক্তি পায়। ‘পান সিং টোমর’ তাকে জাতীয় পুরস্কারের সম্মান এনে দেয়। আজও ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে এই সিনেমা এক অন্যতম সাক্ষ্য বহন করে । ২০১১ সালে তিনি পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন।

২০১৮ সালে তিনি অভিনয়ের মধ্যগগনে। প্রতিবছর একেকটি করে ছবির আত্মপ্রকাশ। আর দর্শকদের প্রবল শুভেচ্ছা বার্তা তাকে ভরিয়ে দিচ্ছে। সে সময় আসে এক দুঃসংবাদ। তিনি নিউরো এন্ডোক্রিন নামক এক দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। প্রথমে জানানো হয়েছিল তার মাথায় একটি টিউমার রয়েছে। পরে সেই টিউমার আদপে দুরারোগ্য নিউরো ক্যান্সার বলে জানা যায়। অভিনেতা নিজেই তার এই অসুখের সংবাদ সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরেছিলেন। পাশাপাশি তিনি যে ফিরে আসবেন একথা অত্যন্ত জোর দিয়ে বলতেন।

সে বছরই তিনি চিকিৎসার জন্য সপরিবারে উড়ে গিয়েছিলেন লন্ডনে। দ্রুত তার চিকিৎসা শুরু হয়। সে সময় মাঝেমধ্যে তিনি তার শারীরিক অবস্থার কথা তুলে ধরতেন টুইটের মাধ্যমে। তিনি এক প্রবল যন্ত্রণার শিকার হচ্ছেন প্রতিমুহূর্তে। তা শুনে রীতিমতো অসহায় অবস্থায় পড়ে গিয়েছিল বলিউড ও তাঁর গুণমুগ্ধ দর্শকরা। তবে সকলকেই এই লড়াইয়ে তিনি পাশে পেয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ইরফান খান আবার তার নিজের বাড়িতে ফিরে আসেন। বলা হয়েছিল তিনি শারীরিকভাবে এই মুহূর্তে অনেকটাই সুস্থ। তবে বেশ কিছু নিয়ম-কানুন তাকে মেনে চলতে হবে ।

কিছুদিন পরে শুরু হয়েছিল তার কাজকর্ম। ‘আংরেজি একাডেমি’ সিনেমাতে তিনি অভিনয় করেছিলেন। ক্যান্সার যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর এটিই ছিল তাঁর প্রথম ছবি। বলা যেতে পারে এটি কার্যত তার শেষ ছবি। তবে ছবির প্রমোশনে ইরফান থাকতে পারেননি। শারীরিক পরিশ্রম তাকে আবার ক্লান্ত করে দিয়েছে। তাই ছবির প্রমোশনে তিনি এবার নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন। তবে সাধারণ মানুষের জন্য তিনি এক বার্তা দিয়েছিলেন টুইটারে।

ইরফান লিখেছিলেন, “বন্ধুরা আমি ইরফান। আজ আপনাদের সঙ্গে নেই, আবার আছিও। বিশ্বাস করুন যতটা ভালবাসা দিয়ে এই ছবিতে কাজ ঠিক ততটাই ভালবেসে ছবির প্রোমোশন করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু শরীরে এক অতিথি বাসা বেঁধেছে যাকে একদম চাইনি। অগত্যা উপায় কী।” 

মঙ্গলবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। মুম্বইতে কোকিলাবেন ধীরুভাই আম্বানি হাসপাতালে তাকে দ্রুত ভর্তি করানো হয়। তিনি আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার কোলনে সংক্রমণ দেখা দিয়েছিল। শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। ক্রমেই দুশ্চিন্তার পারদ তখন থেকেই গ্রাস করছিল বলিউডকে। স্ত্রী সুতপা শিকদার ও দুই ছেলে হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন। শেষপর্যন্ত জীবনযুদ্ধে হেরে গেলেন এই বলিউড অভিনেতা। প্রত্যেকেই চাইছেন এই ‘জঘন্য স্ক্রিপ্ট’ যেন ছিঁড়ে কুটিকুটি হয়ে যাক। সিনেমার পর্দায় যে অভিনেতা কখনও মারা যাননি তিনি এভাবে চলে যেতে পারেন না। কিন্তু আসলে এটিই ঘোর বাস্তব।

মাত্র ৫৩ বছর বয়সে তিনি সব কিছুকে ছেড়ে চলে গেলেন পরপারে। গত ২৫ এপ্রিল তার মা সাইদা বেগম দেহ রেখেছিলেন জয়পুরের বাড়িতে ছিলেন। ৯৫ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত রোগে তিনি মারা যান। লকডাউন পরিস্থিতিতে জয়পুর যাওয়া সম্ভব নয়। ভিডিও কনফারেন্সে ইরফান সমস্ত যোগাযোগ করেছিলেন। তারপর বেশ কিছুটা ভেঙে পড়েছিলেন বলেও পরিবার সূত্রে খবর। আজ বুধবার তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। গোটা বলিউড এই মুহূর্তে শোকে স্তব্ধ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।