আইপিলের সঙ্গে জোট বাঁধতে আগ্রহী বাইজুস ও কোকাকোলা

ফোর্থ পিলার

আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে শুরু হচ্ছে আইপিএল। চলবে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত। আর এর মধ্যেই ভিভোর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ায় চাপে পড়ে গিয়েছে বিসিসিআই। কারণ খুব কম সময়ের মধ্যে নতুন স্পনসর দরকার বোর্ডের। জানা গিয়েছে আগামী দু-তিনদিনের মধ্যে টেন্ডার ডাকতে পারে বিসিসিআই। আর সেই টেন্ডারের সঙ্গে শুধু এই বছরের জন্যই টাইটেল স্পনসর হিসেবে কোনও সংস্থাকে নেওয়া হবে।

সূত্রের খবর , ইতিমধ্যেই নতুন স্পনসর হিসেবে আগ্রহ দেখিয়েছে বাইজুস ও কোকাকোলা। এমনিতেই বাইজুস টিম ইন্ডিয়ার স্পনসর। কয়েক মাস আগেই ওপোর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার পরে বাইজুস টিম ইন্ডিয়ার নতুন স্পনসর হয়েছে। তার মধ্যে আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের স্পনসরও বাইজুস। কারণ, এই কোম্পানির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর নাইটদের মালিক শাহরুখ খান। তাই এমনিতেই ভারতীয় দল ও আইপিএলের সঙ্গে বাইজুস যুক্ত রয়েছে। শোনা যাচ্ছে, এক বছরের জন্য ৩০০ কোটি টাকার চুক্তি করতে চাইছে বাইজুস।

অন্যদিকে পানীয় সংস্থা কোকাকোলাও নাকি উৎসাহ দেখিয়েছে আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত থাকার বিষয়ে। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, তাঁরা ক্রিকেটে যুক্ত থাকতে চান। কিন্তু এই মুহূর্তে আরও কিছুটা দেখে নিতে চাইছেন তাঁরা। কিছুদিন দেখে নিয়ে তারপরেই কোনও সিদ্ধান্ত তাঁরা নেবেন বলে খবর।

বাইজুস ও কোকাকোলা ছাড়া আরও অন্যান্য দেশীয় সংস্থা এই বছরের জন্য আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হওয়ার ইচ্ছেপ্রকাশ করেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে বিসিসিআই সূত্রে খবর, সবটাই হবে টেন্ডারের মাধ্যমে। অর্থাৎ যে কোম্পানি টেন্ডার পাবে, সেই কোম্পানিই চলতি বছর আইপিএলের স্পনসর হবে।

২০১৭ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ভিভোর সঙ্গে ৫ বছরের চুক্তি করেছিল বিসিসিআই। প্রতি বছর ৪৪০ কোটি টাকা করে মোট ২২০০ কোটি টাকার চুক্তি রয়েছে ভিভোর সঙ্গে। তাই যদি এ বছর ভিভো সরে দাঁড়ায় তাহলে শুধু এক বছর নয়, তিন বছর অর্থাৎ ১৩২০ কোটি টাকা লোকসান হবে বিসিসিআইয়ের। সেটা চাইছে না বোর্ড।

বিসিসিআইয়ের এক কর্তা জানিয়েছেন, আপাতত এবছর অন্য স্পনসর নেওয়ার চিন্তা ভাবনা রয়েছে। আগামী বছর পরিস্থিতি দেখা হবে। এখনকার মতো চিনা কোম্পানির সঙ্গে তখন বিরোধিতা নাও থাকতে পারে।তখন ফের ভিভোকে আনা হতে পারে।সেক্ষেত্রে চুক্তি বাড়িয়ে ২০২৩ সাল পর্যন্ত করা হতে পারে। তাহলে সেই সময় চুক্তির পুরো টাকাটাই পাবে বিসিসিআই। সেই ভাবনা রয়েছে তাদের। এখন শুধু দেখার যে এক বছরের জন্য আইপিএলের শেষ পর্যন্ত কে জোট বাঁধে।

চলতি বছর আইপিএলে চিনা মোবাইল কোম্পানি ভিভোর সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন হয়েছে বিসিসিআইয়ের। অর্থাৎ এবারের আইপিএলে আর টাইটেল স্পনসর হিসেবে দেখা যাবে না ভিভোকে। যদিও আগামী মরসুমে ফের ভিভোকে স্পনসর হিসেবে চাইছে বোর্ড। আর তাই প্রাথমিকভাবে শুধু এই বছরের জন্যই আইপিএলের স্পনসর হিসেবে অন্য কোনও সংস্থাকে চাইছে তারা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।