আজ রাত থেকে তাপমাত্রা নামবে, শীতের চাদর শহরে

ফোর্থ পিলার

পূর্বাভাস মতোই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রার পারদ নামতে শুরু করেছে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছিল, রবিবার থেকে তাপমাত্রা কমবে। সোমবার থেকে শীতের আমেজ পেতে শুরু করবে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গ। ঠিক সেই ঘটনাই ঘটছে। কলকাতায় রবিবার সকাল থেকেই ঠাণ্ডা হওয়া উপস্থিতি জানান দিচ্ছে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, কলকাতায় রবিবার সকালে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫.৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। স্বাভাবিকের থেকে ৪ ডিগ্রি কম। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৯.৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, রবিবার রাত থেকে শীতের দাপট প্রভাব ফেলবে ধারাবাহিকভাবে। সোমবার থেকে শীত নামবে শহরে। কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড পর্যন্ত নামার সম্ভাবনা থাকছে। কলকাতা ও শহরতলি বাদ দিলে জেলাগুলিতে আরও দুই থেকে তিন ডিগ্রি নামবে তাপমাত্রার পারদ।

রবিবার সকাল থেকে ঠাণ্ডা হাওয়া বইছে। তবে আকাশে মেঘের আস্তরণ ছিল। সূর্যের তেজ খুব একটা দেখতে পাওয়া যায়নি। শনিবার কাকভোরে ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি হয়েছে রাজ্যের বহু জেলায়। শনিবার ছিল স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়া। হাওয়া অফিস জানিয়েছিল, এই আবহাওয়া কাটলে শীত দেখা দেবে। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছে। মধ্য ভারতে তাপমাত্রা নামবে এরপর। চলতি সপ্তাহে মঙ্গল- বুধবার থেকে তাপমাত্রা আরও খানিকটা নামবে।

দিল্লির মৌসুম ভবন জানাচ্ছে, কাশ্মীরে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা রয়েছে। তার ফলে উত্তরে হাওয়া বাধা পেয়েছে। ভূমধ্যসাগর থেকে জলীয়বাষ্প দেশের পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে ছুটছে। সে কারণেই তাপমাত্রা বাড়ছে। এই পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলে তুষারপাত হবে। পশ্চিমী ঝঞ্জা কাটলে কনকনে ঠাণ্ডা বাতাস জোরালোভাবে বইতে শুরু করবে।

জানা যাচ্ছে, পশ্চিমী ঝঞ্জা সমস্যা তৈরি করেছে উত্তরে হাওয়ার। পাশাপাশি সাগরে উচ্চচাপ বলয় তৈরি হচ্ছে। আকাশে জলীয়বাষ্প পূর্ণ মেঘ ঢুকে যাচ্ছে। যে কারণে কনকনে ঠাণ্ডা পরছে না। নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে বরাবর পশ্চিমী ঝঞ্জা ও নিম্নচাপ সমস্যা তৈরি করে শীতের আগমনে। এবারেও ঠিক তাই হল। নভেম্বর মাসের শুরুতে তাপমাত্রা কমতে শুরু করেছিল। সন্ধ্যে নামার সঙ্গে সঙ্গে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ নামতে শুরু করে। ভোররাতে জাঁকিয়ে ঠাণ্ডা পড়ছিল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।