আমেরিকায় বন্দুকবাজের হানায় মৃত্যু ১০ জনের

ফোর্থ পিলার

ফের আমেরিকায় বন্দুকবাজের হানা। কলোরাডোর একটি দোকানে এলোপাথাড়ি গুলি চালায় এক ব্যক্তি। এই ঘটনায় ১০জন মারা গিয়েছেন ইতিমধ্যেই। গুলিতে জখম আরও বেশ কয়েকজন। হামলাকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মৃত ব্যাক্তিরা ক্রেতা ও সাধারণ মানুষ। একজন পুলিশ কর্মী রয়েছেন বলে খবর। ওই ব্যক্তি মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। একথা মনে করছেন তদন্তকারীরা।

গত এক সপ্তাহের মধ্যে দুবার বন্দুকবাজ হানা দেখল আমেরিকা। গত সপ্তাহে জর্জিয়ায় আটলান্টায় একটি ম্যাসাজ পার্লারে গুলি চালানো হয়। ওই ঘটনায় মোট আটজন মারা গিয়েছিলেন। রবার্ট লং নামে এক একুশ বছরের যুবককে ওই ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই আটজন মহিলা প্রত্যেকেই এশীয়। কাজেই দুর্ঘটনায় হামলায় আরও বেশি করে উসকে দিচ্ছে ধর্ম, দেশীয় বিষয়। গতকাল কলোরাডোতে ফের হামলার ঘটনা ঘটল। এলোপাথাড়ি গুলি চালানো হয়েছে দোকানে ঢুকে। সাধারণ মানুষ রীতিমতো আতঙ্কে থেকেছেন সেই ঘটনার পরে।

স্থানীয় পুলিশকর্তা ক্যারি ইয়ামাগুচি ঘটনার বিষয়ে জানিয়েছেন। সোমবার উত্তর কলারাডোর বোলডার শহরের ‘কিং স্কুপার্স’ নামের একটি দোকানে হামলা চালায় ওই বন্দুকবাজ। দোকানে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি করতে থাকে সে। গুলির আঘাতে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে এক পুলিশকর্মীও রয়েছেন। লোকজন প্রাণভয়ে ছুটতে থাকে রাস্তায়। অনেকেই জখম হয়েছেন।পুলিশ এসে জায়গাটি ঘিরে ফেলে। পুলিশ পালটা গুলি চালাতে থাকে। পুলিশের পালটা গুলিতে হামলাকারী জখম হয়। এরপর তাকে পাকড়াও করা হয়েছে তাকে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শহরের মেয়র স্যাম উইভার বলেন, “এই ঘটনা ভাষায় ব্যক্ত করা যাবে না, তবে ক্ষত শুকিয়ে যাবে। আমরা আবার ঘুরে দাঁড়াব।” কলারাডোর গভর্নর জ্যারেড পলিস গভীরভাবে শোকাহত। তিনি বলেন, “বোলডারে ঘটা এই মর্মান্তিক ঘটনায় আমার হৃদয় ভেঙে খানখান হয়ে গিয়েছে।” স্থানীয় মানুষদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। অনেকেই মৃত্যু কাছ থেকে দেখেছেন ওই সময়। তাদেরও চিকিৎসকের হচ্ছে। ধৃত ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।