আড়াই হাজারের নিচে দৈনিক আক্রান্ত, মৃত্যু ৫৫ জনের

ফোর্থ পিলার

রাজ্যে দৈনিক করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই হাজারের নিচে নেমে এল। মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে অনেকটাই। দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকানো সম্ভব হয়েছে। এবার তৃতীয় ঢেউ আসার আশঙ্কা। এইমসের প্রধান জানিয়েছেন, ছয় থেকে আট সপ্তাহের মধ্যেই ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ চলে আসতে পারে। চিকিৎসকরা সেই নিয়ে এখন যথেষ্ট আলোচনার মধ্যে রয়েছেন।

সাধারণত শোনা যাচ্ছিল, অক্টোবর মাসে ভারতবর্ষে করোনার তৃতীয় ঢেউ আসবে। সংক্রমণের ধাপ গোটা রাজ্যে কমে এসেছে অনেকটা। এই পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে জনজীবন। করোনার দৈনিক তথ্য রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর দিচ্ছে। শনিবার সন্ধ্যায় পাওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় ২৪৮৬ জন রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২১০৯ জন। ৫৫ জন মারা গিয়েছেন গত 24 ঘন্টায়। রাজ্যে ১৪ লক্ষ ৭৯ হাজার ৫২৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লক্ষ ২৯ হাজারের কিছু বেশি মানুষ।

এই মুহূর্তে ২৩ হাজার আক্রান্ত চিকিৎসাধীন রয়েছেন। একসময় এই সংখ্যা এক লক্ষের উপর ছিল। রাজ্যের সেফ হোমগুলি এখন অনেকটাই ফাঁকা। হাসপাতালের বেডগুলিও ধীরে ধীরে ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। সুস্থতার হার ৯৭.২৮ শতাংশ। উত্তর ২৪ পরগনায় দৈনিক সংক্রমণ নেমেছে অনেকটাই। ৩৬৪ জন গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন। কলকাতায় ২১৭ জন আক্রান্ত। নদিয়া, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া হুগলি, দুই মেদিনীপুর জেলায় সংক্রমণ একশোর ঘরে রয়েছে। দার্জিলিঙে আক্রান্তের সংখ্যা গত ২৪ ঘন্টায় সামান্য বেড়েছে। ২৩৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন এই জেলায়। জলপাইগুড়িতে ২০২ জন আক্রান্ত। তৃতীয় ঢেউতে দার্জিলিং ও জলপাইগুড়িতে প্রভাব পড়বে। এ কথা জানানো হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।