ইন্টার্নকে পুলিশ পিটিয়েছে, মেডিক্যাল কলেজে চলছে কর্মবিরতি

ফোর্থ পিলার

পুলিশ ফাঁড়িতে ধরে নিয়ে গিয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসককে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। এই অভিযোগে উত্তাল হয়ে উঠল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ চত্বর। বেলা তিনটে থেকে এই খবর লেখা পর্যন্ত হাসপাতালে চলছে ইন্টার্নদের কর্মবিরতি। যার জেরে চার ঘণ্টার বেশি সময় ধরে হাসপাতাল চত্বরে থমকে রয়েছে চিকিৎসা পরিষেবা।

মেডিকেল কলেজের সুপারের ঘরে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক চলছে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে। ইন্টার্নদের দাবি, অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন থেকে সরে যাবেন না। দাবি মানা না হলে আগামীকাল থেকে আরও বড় আন্দোলন হতে পারে। অতি সম্প্রতি এনআরএস – এর জুনিয়র ডাক্তারদের উপর আক্রমণ ও তার জেরে রাজ্যে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছিল অচিরেই। সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছিল স্বাস্থ্যব্যবস্থা।

এক্ষেত্রে যাতে কোনও আন্দোলনের রূপরেখা দেখা দিতে না পারে সেজন্য বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান সূত্র বের করার চেষ্টা চলছে। পুলিশ মহলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও বৈঠকে উপস্থিত রয়েছেন। ঘটনার সূত্রপাত এদিন দুপুরে। ইন্টার্ন বুলবুল শেখকে হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

ইন্টার্ন বুলবুল শেখ জানিয়েছেন, তিনি এক রোগীর জন্য আউটডোরের টিকিট কাউন্টারে গিয়েছিলেন। লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা লোকজন তাঁর দিকে বেলাইন করার অভিযোগ তোলা হয়। তার দিকে তেড়ে আসে বহু মানুষ। বচসা শুরু হয়। লাগোয়া পুলিশ ফাঁড়ি থেকে আসে পুলিশকর্মীরাও। তাকে ধরা হয়। সে সময় বুলবুল তার পরিপত্র দেখালেও পুলিশ কর্মীরা কোনও কথা শোনেনি। তাকে ফাঁড়িতে তুলে এনে বেধড়ক পেটানো হয়েছে বলে অভিযোগ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।