উত্তাল হল রাজ্যসভা, ধর্ষকদের পিটিয়ে মারার কথা বললেন জয়া বচ্চন

ফোর্থ পিলার

হায়দরাবাদের তরুণীর মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদ এবার উঠল সংসদে৷ আজ রাজ্যসভা উত্তাল হল এই ধর্ষণকাণ্ডের বিষয়ে। দেশের আইনকে আরও কঠিন করা উচিত এই দাবি তোলা হয়েছে। দলমত নির্বিশেষে প্রতিবাদ হয়েছে সংসদে। সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন ধর্ষকদের পিটিয়ে মারার কথা বলেছেন রাজ্যসভায়। অমিতাভ বচ্চন পত্নী জয়া বচ্চন আজ খুবই উত্তেজিত ছিলেন এই ঘটনা প্রসঙ্গে৷

জয়া বচ্চন বলেন, ‘ধর্ষণকারীদের জনসমক্ষে পিটিয়ে মেরে ফেলা উচিত। এমন কঠোর শাস্তি দিতে হবে যা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকে।’ সরকার আইন পাশ করে ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান দিয়েছে। তিনি প্রশ্ন ছুঁড়েছেন, ‘তার পরেও নিরীহ মেয়েরা কি সুবিচার পেয়েছে? নির্ভয়াও কি সুবিচার পেয়েছিল?’ নির্ভয়াকাণ্ড থেকে কাঠুয়া একাধিক ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে আনেন তিনি।

একের পর এক ঘটনায় তিনি বারে বারে সরব হয়েছেন এখানেই। কিন্তু কোথাও সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি আইন বদলের জন্য পরিষ্কার হচ্ছে না, এমন ইঙ্গিতও তিনি দিয়েছেন। তার কথায়, ‘
আমার মনে হয়, জনগণ এখন সরকারের থেকে একটা সুস্পষ্ট জবাব চাইছে। আর কতদিন এমন চলবে। আর কত যন্ত্রণা কত অত্যাচার সহ্য করতে হবে।’

রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা কংগ্রেসের সাংসদ গুলাম নবি আজাদ বলেন, ‘গোটা দেশ মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে এই সামাজিক রোগের প্রতিকারের পথ বের করতেই হবে। এমন পরিবেশ দেশে গড়ে তুলতে হবে যাতে এ ধরনের ঘটনাই না ঘটে।’ সরকারও চাইছে এই বিষয়ে আরও কঠিন আইন তৈরি করতে। রাজ্যের সাংসদ বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ও গতদিন তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। অবিলম্বে ধর্ষকদের মেরে ফেলার কথা বলেছিলেন। সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় জানান, রাজনীতি সরিয়ে দলমত নির্বিশেষে এই ধরনের ঘটনার মোকাবিলা করতে হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।