এই বছরের জন্যই স্পনসর খুঁজছে বিসিসিআই

ফোর্থ পিলার

দেশজুড়ে চলছে প্রবল চিন বিরোধিতা চলছে। মঙ্গলবার চিনা মোবাইল সংস্থা ভিভো জানিয়েছে, আইপিএলের টাইটেল স্পনসর থেকে সরে দাঁড়াবে তারা। তারপরেই চাপের মধ্যে পড়েছে বিসিসিআই। এই আবহের মধ্যে নতুন করে স্পনসর খুঁজতে হবে বোর্ডকে। তবে জানা গিয়েছে, এখনও ভিভোর সঙ্গে পুরোপুরি সম্পর্ক ছিন্ন করতে রাজি নয় তারা। বোর্ড এই বছরের মতো একজন স্পনসর খুঁজছে। পরিস্থিতি ভালো হলে আগামী বছর ফের ভিভোকে স্পনসর হিসেবে চায় বোর্ড।

বিসিসিআই সূত্রের খবর, আগামী তিনদিনের মধ্যেই টেন্ডার ডাকতে পারে তারা। কারণ আইপিএলের আর বেশি দিন দেরি নেই। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে শুরু হওয়ার কথা আইপিএল। এরই মধ্যে আইপিএলের স্পনসর ঠিক করতে হবে তাদের। তবে এবার বোর্ড চাইছে যত কম টাকার মধ্যে কোনও এক স্পনসর ঠিক করতে।

জানা গিয়েছে, শুধু্ এই বছরের জন্যই স্পনসর নিয়োগ করতে চাইছে বিসিসিআই। আর তার জন্যই কম টাকার স্পনসর নিয়োগ করতে চাইছে তারা। কারণ, অল্পদিনের জন্য স্পনসর হলে কেউ খুব বেশি টাকা দিতে চাইবে না। তাতে কোনও সমস্যা নেই বোর্ডের। এবছর টুর্নামেন্ট মিটে গেলে আগামী বছর ফের ভিভোর সঙ্গে কথা বলতে চাইছে তারা।

২০১৭ সালে থেকে ভিভোর সঙ্গে পাঁচ বছরের চুক্তি করেছিল বিসিসিআই। প্রতি বছর ৪৪০ কোটি টাকা করে মোট ২২০০ কোটি টাকার চুক্তি রয়েছে ভিভোর সঙ্গে। এই বছর ভিভো যদি সরে দাঁড়ায়, তাহলে শুধু এক বছর নয়, তিন বছর অর্থাৎ ১৩২০ কোটি টাকা লোকসান হবে বিসিসিআইয়ের। সেটা চাইছে না বোর্ড।

বিসিসিআইয়ের এক কর্তা জানিয়েছেন, আপাতত এই বছরের জন্যই স্পনসর নেওয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে। আগামী বছর পরিস্থিতি দেখা কেমন হবে তার ওপর নেওয়া হবে পরবর্তী সিদ্ধান্ত। এখনকার মতো চিনা কোম্পানির বিরোধিতা তখন নাও থাকতে পারে। তখন ফের ভিভোকে আনা হতে পারে। সেক্ষেত্রে চুক্তি বাড়িয়ে ২০২৩ সাল পর্যন্ত করা হতে পারে। তাহলে চুক্তির পুরো টাকাই পাবে বিসিসিআই। সেই ভাবনা রয়েছে তাদের।

শুধু তাই নয়, বোর্ড ছাড়াও কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গেও চুক্তি রয়েছে ভিভোর। ফলে তারা চলে গেলে সেই সব ফ্র্যাঞ্চাইজি চাপ বাড়াতে পারে বোর্ডের উপর। এরকম কিছুই চাইছে না বোর্ড। তাই কোনওমতে ভিভোকে ফের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে তারা। এই বছরের যা পরিস্থিতি তাতে কোনওমতেই সম্ভব নয়। এ বছর অন্য কোনও স্পনসর চাইছে তারা। তবে এখন দেখার এক বছরের জন্য আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হতে কে এগিয়ে আসে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।