করোনাকে বুড়ো আঙুল, বাড়ি ফিরলেন ৯৮ -এর ‘যোদ্ধা’

ফোর্থ পিলার

শত খারাপের ভিড়েও মন ভালো করে দেয় কিছু খবর। ভুবনেশ্বরের ৯৮ বছরের বৃদ্ধার করোনা জয়ের গল্পও ঠিক তেমনই। করোনাকে হারিয়ে বুধবারই বাড়ি ফিরে এসেছেন ভুবনেশ্বরের অন্নপূর্ণা বিশ্বাল। এই বৃদ্ধা করোনাকে হারিয়ে বাকিদের সাহস জোগাচ্ছে। অন্নপূর্ণাদেবীর সর্বক্ষণের দেখাশোনা করতেন যিনি, প্রথম তার কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে। পরদিনই অন্নপূর্ণাদেবীরও কোভিড উপসর্গ দেখা দেয়। পরীক্ষায় তাঁর শরীরেও কোভিড-১৯’র উপস্থিতি নজরে আসে।

তবে পরিবারের বাকি সদস্যরা সকলেই নেগেটিভ। হাসপাতালের কর্মীরা বলছেন “ওনার মনের জোরই এ লড়াইকে জিতিয়ে দিল।” প্রায় ২০ বছর হয়ে গেল ডায়াবেটিস বাসা বেঁধেছে অন্নপূর্ণাদেবীর শরীরে। সঙ্গে রয়েছে হাইপারটেনশন ও ফাইলেরিয়াও। এরই মধ্যে চলতি মাসের শুরুর দিকে তাঁর কোভিড উপসর্গ দেখা দেয়। পরীক্ষা করা হলে গত ৫ মে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। যেহেতু অন্নপূর্ণাদেবীর বয়স এতটা বেশি, সঙ্গে নানা শারীরিক সমস্যা। তাই পরিবারের লোক তাকে হাসপাতালে ভর্তি করান। অন্নপূর্ণাদেবীর মনের জোর রীতিমত অবাক করে দিয়েছে সেখানকার ডাক্তার ও নার্সকে।

এই মনের জোরই তার শারীরিক দুর্বলতাকে সরিয়ে করোনার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সাহায্য করেছে। এমনও হয়েছে তার অক্সিজেন স্যাচুরেশন ওঠানামা করেছে। কিন্তু তাতে একবারের জন্যও ঘাবড়ে যাননি এই লড়াকু বৃদ্ধা। চিকিৎসার ক্ষেত্রে ডাক্তাররা একশো শতাংশ সহযোগিতা পেয়েছে তার। হাসপাতালের এক নার্সের কথায়, “রাজ্যের মধ্যে অন্নপূর্ণাদেবী সবথেকে বয়স্ক মহিলা যিনি করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠলেন। হাসপাতালের ভিতরে উনিই আমাদের শক্তি হয়ে উঠেছেন। অন্য রোগীদের কাছে উনি অনুপ্রেরণা।” অন্নপূর্ণাদেবীর পরিবার হাসপাতালের ডাক্তার, নার্সদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।