কাটমানি প্রসঙ্গে আবারও মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধলেন নরেন্দ্র মোদী

ফোর্থ পিলার

গতকাল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত হয়েছে। মিলেনিয়াম পার্কে পাশেও বসেছেন। আজ পোর্ট ট্রাস্টের অনুষ্ঠানে রাজ্য সরকার ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ তার বক্তব্যে উঠে এল কাটমানি প্রসঙ্গ। গরিব মানুষের জীবনের উন্নয়নে, কৃষকদের উন্নতিতে কেন্দ্রীয় সরকার একাধিক প্রকল্প করেছে। সেখানে কাটমানি নেই৷ এই রাজ্যে সেইসব প্রকল্প চালু করছে না রাজ্য সরকার। কারণ, সেখানে কাটমানি পাওয়ার সম্ভাবনা নেই তৃণমূল সরকারের। এমনই অভিযোগ করলেন ইন্ডোর স্টেডিয়ামের মঞ্চ থেকে নরেন্দ্র মোদী।

প্রধানমন্ত্রী কাজের খতিয়ান দিতে গিয়ে বলেন, ‘পিএম কৃষকসম্মান নিধি প্রকল্পের আওতায় আটকোটির বেশি কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট আছে। সেখানে সরাসরি মোট ৪৩ হাজার কোটি টাকা জমা হয়েছে।’ এর সঙ্গে তিনি যোগ করেন, এর মধ্যে কোনও কাটমানি নেই। সিন্ডিকেট রাজ এখানে মাথা তুলতে পারে না। কোনও মিডলম্যান বা দালাল শ্রেণিও থাকতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেন, কৃষকদের কাছে টাকা সোজাসুজি পৌঁছে যাচ্ছে। টাকা কামানোর সুযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই পশ্চিমবঙ্গে এই প্রকল্প চালু হয়নি।

ভোটের সময় মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্য সরকারকে বিঁধে কাটমানি প্রসঙ্গ উঠে এসেছিল। নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ সহ একাধিক বিজেপি নেতা এই প্রসঙ্গে বক্তব্য রেখেছিলেন। কাটমানি ফেরত চেয়ে বহু সাধারণ মানুষ স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের বাড়িতে হামলাও চালায় জেলায় জেলায়। আজ সেই কাটমানি প্রসঙ্গই ফের উঠে এল প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যতে। কেন্দ্রীয় সরকারের উজ্জ্বলা যোজনার কথাও আজ নরেন্দ্র মোদী বলেন। আয়ুস্মান ভারত প্রকল্প এই রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চালু করতে দিতে চান না। সেই প্রসঙ্গেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, ‘রাজ্য সরকার আয়ুষ্মান ভারতের স্বীকৃতি দেবে কিনা জানি না। যদি দেয়, তাহলে এই প্রকল্পে অনেক গরিব মানুষ চিকিৎসার সুযোগ পাবেন। যাঁদের অর্থ নেই, তাঁরাই সুবিধে পাবেন।’

উজ্জ্বলা যোজনার প্রসঙ্গে এই রাজ্যের গ্রাহকদের পরিসংখ্যান দেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন,
‘পশ্চিমবঙ্গে ৯০ লক্ষ মানুষকে এই প্রকল্পে গ্যাসের কানেকশন দেওয়া হয়েছে। ৩৫ লক্ষ গরিব পিছিয়ে পড়া মানুষ আছে এর মধ্যে। , গরিব মানুষ।’ এই রাজ্যের উন্নতির জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সবসময় চেষ্টা করছে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।