কেরালার প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের ডাক্তার ভি এস প্রিয়া

ফোর্থ পিলার

তিনি মানবী। তার জীবন জুড়ে রয়েছে যুদ্ধ। একদিকে সামাজিক লড়াই। অন্যদিকে মানসিক। একের পর এক বাধা জয় করে এগিয়ে গিয়েছেন তিনি। স্বপ্নের একটা বড় ধাপ তিনি জয় করেছেন। কেরালার প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের চিকিৎসক হিসেবে স্বীকৃত হলেন ডা. ভি এস প্রিয়া। তার বার্তা এই মুহূর্তে ইন্টারনেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

কেরালার প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের চিকিৎসক ভি.এস.প্রিয়া বলেছেন, “নিজেকে খুঁজে পেয়ে আমি সত্যিই আনন্দিত। আসলে আমি নারীত্ব উদযাপন করছি। আমি নিজের মধ্যে শারীরিক এবং মানসিক বৈষম্যকে সফলভাবে কাটিয়ে উঠলাম। আমার পরিবারের সমর্থন আমাকে এ অর্জনে সহায়তা করেছে। সুতরাং, আমি অন্যান্য বিষয় নিয়ে মাথা ঘামাই না।” তার জীবন জুড়ে একাধিক ওঠানামা। একটা সময় স্বপ্ন দেখতেন তিনি ডাক্তার হবেন। সেই স্বপ্ন সত্যি করার জন্য লড়াই শুরু হয়।

তিনি আরও বলেন,”আমি বিশ্বাস করি জীবন মূল্যবান। সুতরাং, আমার পরিচয় গোপন করার জন্য আমার মুখোশের দরকার নেই। আমি আমার ভবিষ্যতের বিষয়ে মাথা ঘামাই না কারণ আমি কেবল আমার বর্তমানের কথা ভাবছি। আমি আমার জীবনকে নষ্ট করতে আগ্রহী নই।” তাকে নিয়ে কেরলের যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে উৎসাহও ছড়িয়ে পড়েছে।

কয়েক মাস আগে, ডাঃ প্রিয়া একজন পুরুষ থেকে একজন মহিলা হয়ে ওঠার সংগ্রাম সম্পর্কে ব্যাখ্যা করেছিলেন। অস্ত্রোপচার হয়েছে তার। তবে এখনও সব প্রক্রিয়া শেষ হয়নি। প্রিয়া’র ভয়েস থেরাপি সহ অনেকগুলি চিকিৎসার দরকার হয়। সেইসব চলছ এইসময়ে। সব বাঁধা পেরিয়ে তিনি মানুষের পাশে থাকবেন। চিকিৎসায় ব্রতী হয়েছেন। এই অঙ্গীকার নিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।