গায়ে তেলের আস্তরণ, ১৭ টি ডলফিনের মৃতদেহ ভেসে এল মরিশাসের সৈকতে

ফোর্থ পিলার

সমুদ্রের জলে ভেসে এসেছে একে একে মৃত ডলফিন। মরিশাসের সমুদ্রসৈকতে এখন ডলফিনের মৃতদেহ ভেসে আসার পালা। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, এখন অবধি ১৭ টি ডলফিন মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। মরিশাসের মৎস্য মন্ত্রক এই কথা স্বীকার করে নিয়েছে। এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা রীতিমতো আতঙ্কিত ঘটনায়। গত ২৫ জুলাই ভারত মহাসাগরে অগভীর অংশে জাপানের একটি তেলবাহী জাহাজ আটকে পড়েছিল। প্রবাল প্রাচীরে ধাক্কা লেগে জাহাজ ভেঙে দু’টুকরো হয়ে যায়। জাহাজের তেল ছড়িয়ে পড়ে ভারত মহাসাগরে। সেখান থেকেই এই বিপর্যয়ের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে।

জাপানের জাহাজ দুর্ঘটনার পর ৩৩ দিন কেটে গিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় মৃত ডলফিনের ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ইতিমধ্যে। দেখা গিয়েছে ডলফিনগুলির শরীরে একাধিক ক্ষত রয়েছে। শুধু তাই নয়, ডলফিনের শরীরে পুরু তেলের আস্তরণ রয়েছে। যেখান থেকে তারা শ্বাস-প্রশ্বাস নেয় সেই ছিদ্রগুলিও ঢাকা তেলে।

আরও অনেক ডলফিন মারা গিয়েছে। এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে। দুর্ঘটনাস্থলের থেকে ১৪ মাইল উত্তর পর্যন্ত সমুদ্রে তেল ছড়িয়ে গিয়েছিল। উপগ্রহ চিত্রে গত ১১ আগস্ট এই ছবি ধরা পড়ে। বিপর্যয় মোকাবিলার কাজ কতটা সুষ্ঠুভাবে হয়েছে? সেই নিয়েও প্রশ্নচিহ্ন রয়েছে। প্রথমদিকে মৃত মাছ, কচ্ছপ, কাঁকড়া সহ একাধিক প্রাণী সমুদ্রে উপরে ভেসে উঠতে থাকে। এরপর ডলফিনের মৃতদেহ ভেসে আসতে দেখা যাচ্ছে।

প্রমাদ গুনছেন বিজ্ঞানীরা। ওই এলাকাতে তিমি ও শুশুক রয়েছে। তাদের জীবন অবস্থা সম্পর্কেও যথেষ্ট দুশ্চিন্তা ছড়িয়েছে। সামুদ্রিক প্রাণীদের অবস্থা সংকটজনক। একথা পরিবেশ বিজ্ঞানীরা মনে করছেন। সামুদ্রিক প্রাণীদের মৃতের সংখ্যা আগামী দিনে এই ঘটনায় আরও বাড়তে পারে।

জানা যাচ্ছে, মরিশাসের এই উপকূলবর্তী এলাকা পর্যটকদের জন্য আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। এখানে ডলফিনের ঝাঁক দেখার জন্য পর্যটকরা আসেন। ঢেউয়ের মাঝে কয়েকশো ডলফিনকে লাফাতে দেখতে পাওয়া যায়। কাজেই ডলফিনের মৃতের সংখ্যা আরও অনেকটাই বাড়বে। এই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।