গুজরাটে হাসপাতালে আগুন, মৃত্যু ১৮ জনের

ফোর্থ পিলার

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন রোগীরা। গভীর রাতে আগুন লাগলো হাসপাতালে। অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেলেন ১৮ জন। তাদের মধ্যে দুজন নার্স রয়েছেন। মর্মান্তিক ঘটনাটি গুজরাটের প্যাটেল ওয়েলফেয়ার হাসপাতালের। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি এই ঘটনার জন্য মর্মাহত। মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের জন্য শোকপ্রকাশ করেছেন তিনি।

এর আগে অতিসম্প্রতি মহারাষ্ট্রে হাসপাতালে আগুন লাগে। মারা গিয়েছিলেন রোগীরা। এছাড়াও নাসিকে অক্সিজেন গ্যাস সিলিন্ডার বিভ্রাটে মারা গিয়েছিলেন করোনা আক্রান্ত রোগীরা। গুজরাটের ভারুচ এলাকায় প্যাটেল ওয়েলফেয়ার হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা হছিল। হাসপাতালের একতলা করোনা আক্রান্তদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে আইসিউতে ২৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন ছিলেন।

গতকাল শুক্রবার গভীর রাতে আগুন লাগে আইসিউইতে। রোগীরা সেইসময় ঘুমোচ্ছিলেন। আগুন ছড়িয়ে পড়ে মুহূর্তে হাসপাতালের একতলায়। তার মধ্যেই অনেক রোগীকে সরানোর চেষ্টা হয়েছিল। সকালে খবর পাওয়া যায় ১২ জন মারা গিয়েছেন। হাসপাতালে আগুন নেভানোর জন্য দমকল কর্মীরা পৌঁছে যান। দীর্ঘ সময় চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ততক্ষণে একতলা প্রায় সম্পূর্ণ আগুনের গ্রাসে ভষ্মিভূত। আগুনের লেলিহান শিখার কালো দাগ দেওয়াল জুড়ে। চারদিকে ধ্বংসস্তূপ কার্যত।

পরবর্তী সময়ে জানা যায়, মোট ১৮ জন মারা গিয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজন নার্স রয়েছেন। ৫০ জনকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে অন্য হাসপাতালে। মৃতের সংখ্যা বাড়ার সম্ভাবনা থাকছে। দমকল বিভাগের কর্মীদের অনুমান শর্ট সার্কিট হয়েছিল। সেখান থেকেই এত বড় আগুন। এভাবে পরপর একাধিক হাসপাতালে আগুন লাগার ঘটনা ঘটল। শতাধিক করানো আক্রান্ত রোগী অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন গত এক বছরে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।