চালক, গার্ড করোনা আক্রান্ত, লোকাল ট্রেন বাতিলের হিরিক

ফোর্থ পিলার

লোকাল ট্রেনের উপরেও করোনা ভাইরাসের প্রভাব পড়ল। শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায় প্রচুর লোকাল ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। গতকাল রবিবার লোকাল ট্রেন বাতিল হয়েছিল। সপ্তাহের শুরু সোমবার দিনেও লোকাল ট্রেন বাতিল থাকল। ট্রেনের চালক গার্ড, সিগনালিংয়ের দায়িত্বে থাকা কর্মীরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। তারা কাজে যোগ দিতে পারছেন না। সেই সমস্যার কারণেই লোকাল ট্রেন ক্যানসেল করতে হচ্ছে। দক্ষিণ শাখায় সোমবার ২৫ টি লোকাল ট্রেন বাতিল করা হয়েছে বলে খবর। পরিস্থিতি খুব একটা আশানুরূপ নয়।

করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ পূর্ব রেলের চারটি ডিভিশনেই এসে পড়েছে। মোটরম্যান, গার্ড ও সামনের সারির কর্মীরা গত বেশ কয়েকদিন আক্রান্ত হয়েছেন। তথ্য বলছে, এক দিনে শিয়ালদহ ডিভিশনের ১৪ জন গার্ড করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন৷ লোকাল ট্রেন পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে। আগামী দিনে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে৷ এই আশঙ্কা করা হচ্ছে। পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী চিন্তিত এই বিষয়ে। তিনি বলেন, “আমরা এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও পরিষেবা যথাযথ রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।” রবিবার ১৮ টি লোকাল ট্রেন বাতিল করা হয়েছিল।

প্রতিটি স্টেশন ও প্ল্যাটফর্মে যাত্রীদের করোনা বিধি মেনে চলার কথা বলা হচ্ছে। এজন্য যাত্রী ও রেলকর্মী উভয়ের উদ্দেশেই ঘোষণা চলছে। কিন্তু সেই ছবি দেখা যাচ্ছে না। বাস্তবের ছবিটা অন্য। ট্রেন ও স্টেশন চত্বরে সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা হচ্ছে না। সাধারণ যাত্রীদের অনেকেই মাস্ক ব্যবহার করছেন না। ট্রেনেও মাস্ক পরা হচ্ছে না। এদিকে করোনার গ্রাফ লাফিয়ে বাড়ছে। ট্রেন পরিসেবা বন্ধ করার কোনও পরিকল্পনা নেই৷ এই কথা রেলমন্ত্রক থেকে জানানো হচ্ছে। তবুও উদ্বিগ্নতা রয়েছে একটা অংশে।

পুজোর পর থেকে লোকাল ট্রেন চলতে শুরু করেছে আনলক পর্যায়ে। অফিস কাছারি খুলে যাওয়ায় চাপ বেড়েছে যথেষ্ট। যাত্রীদের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। এই অবস্থায় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভারতে দেখা গিয়েছে। রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ আট হাজারের উপরে রয়েছে। এই প্রেক্ষাপটে রেলের চালকরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। পরিষেবা যাতে বিঘ্নিত না হয়, সেই চেষ্টা চলছে। তবুও লোকাল ট্রেন বাতিল করতে হল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।