চিলিকে হারিয়ে সেমি ফাইনালে ব্রাজিল, ট্রফির থেকে দুই কদম পিছিয়ে

ফোর্থ পিলার

রিও দি জেনেরিওতে উৎসব শুরু হওয়ার অপেক্ষা থাকছে। কোপা আমেরিকার ট্রফি থেকে দুই কদম পিছনে রয়েছে ব্রাজিল। সাম্বা নাচ ফের করোনার সংক্রমণ ছাপিয়ে উদ্বেলিত হয়ে উঠবে। এই আশা করা হচ্ছে ব্রাজিল ফুটবল প্রেমীদের পক্ষ থেকে।

কোপা আমেরিকা কোয়াটার ফাইনাল ম্যাচে প্রতিপক্ষ ছিল চিলি। এক গোলে তাদের পর্যুদস্ত করেছে তিতের দল। প্রতিপক্ষ হিসেবে চিলি যথেষ্ট কঠিন। কিন্তু কোপা আমেরিকার ইতিহাসে নতুন কোনও ঘটনা লেখা হল না। পাঁচবার ব্রাজিল কোপা আমেরিকায় চিলিকে হারালো। চিলি এবং ব্রাজিল একই ঘরানার ফুটবল খেলে। সেক্ষেত্রে চিলিকে মোটেও হালকা ভাবে নেয়নি কোচ তিতে। নিয়ম রক্ষার ম্যাচে ইকুয়েডরের সঙ্গে ফলাফল সমতা ছিল। কোপায় এবার জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে পারেনি ব্রাজিল। তাই কিছুটা চাপ তৈরি হয়।

সেই ম্যাচে নেইমার, গ্যাব্রিয়েল, জেসুস ও অন্যান্যদের বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল। চিলির ম্যাচে তাদের আবার ফিরিয়ে আনা হয়েছে চূড়ান্ত একাদশে। প্রথমার্ধ থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেছে ব্রাজিল। প্রথম অর্ধে ইনজুরি টাইমে প্রথম গোল আসে। ব্রাজিলের পক্ষ থেকে লুকাস পাকেতা গোল করে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেয়। সেসময় উৎসব শুরু হয়ে গিয়েছে ব্রাজিলীয়দের মধ্যে। তবুও চিলিকে কোনওরকম ফাঁক দিতে চায়নি তারা। দ্বিতীয়ার্ধে চিলি কিছুটা আক্রমণাত্মক হয়ে উঠেছিল। ৬৮ মিনিটের মাথায় চিলি ব্রাজিলের জালে বল ঢোকায়। কিন্তু সেই বল আর গোল হয়নি। কারণ অফসাইড ঘোষণা করা হয়েছিল।

তারপর চিলি সেভাবে আর আক্রমণের সামনে ফেলতে পারেনি ব্রাজিলকে। ব্রাজিল চিলিকে আর গোল দিতে পারেনি। ১-০ ফলাফলে ব্রাজিল জেতে। সেমি ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে ব্রাজিল। আর মাত্র দুটি ম্যাচ জিতলেই কোপা আমেরিকা ট্রফি তাদের ঝুলিতে। করোনা আবহে ব্রাজিল এক ভয়াবহ পরিস্থিতিতে রয়েছে। তার মধ্যেই ট্রফি জয়ের আনন্দ ব্রাজিলীয়দের মধ্যে এক বড় আশার ইঙ্গিত দিচ্ছে। ব্রাজিলের কোচ কিছুটা হলেও নিশ্চিন্ত এবার। এখন অবধি টুর্ণামেন্টে ১২ টি গোল করেছে ব্রাজিল। মাত্র একটি গোল তারা খেয়েছে। চিলির ম্যাচে ১০ জনে খেলতে হয়েছে ব্রাজিলকে। জেসুস লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে চলে যান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।