ছত্তিশগড়ে ৯ দিনে ৬ টি হাতির মৃত্যু, চিন্তায় বন দফতর

ফোর্থ পিলার

ছত্তিশগড়ে লাগাতার হাতির মৃত্যু দুশ্চিন্তা ধরিয়েছে। গত ৯ দিনে এই রাজ্যে ছটি হাতি মারা গিয়েছে বলে বন দফতর সূত্রে খবর। অপরাধমূলক কারণে এই হাতিগুলিকে মারা হচ্ছে কিনা সে নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। অন্তঃসত্ত্বা হাতি থেকে পুরুষ ও শিশুহাতির মৃত্যু দুশ্চিন্তায় ফেলেছে বন দফতরকে।

কেরলে হাতির মৃত্যুতে একসময় গোটা ভারতবর্ষে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। তার ঠিক কদিন পরেই ছত্তিশগড়ে একটি হাতির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। গত ৯ জুন থেকে ছত্তিশগড়ের বিভিন্ন জায়গায় হাতি মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। ওই দিন একটি গর্ভবতী হাতিকে জঙ্গলের মধ্যে মৃত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল। ময়নাতদন্তের পর জানা যায়, হাতিটির লিভারে সমস্যা ছিল। তার থেকেই গোটা শরীরে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। এরপর ১০ ও ১১ তারিখে রাজ্যের দুই জায়গায় দুটি হাতির মৃত্যু হয়। তাদের শরীরে কোনও সংক্রমণ পাওয়া যায়নি। কিন্তু মৃত্যুর কারণ নিয়েও ধোঁয়াশা থেকে গিয়েছিল।

এরপর ১৪ থেকে ১৭ তারিখে ফের হাতির মৃত্যুর ঘটনা দেখতে পাওয়া গিয়েছে। বিষক্রিয়ায় তারা মারা যাচ্ছে কিনা উঠেছে প্রশ্ন। মৃত্যু নিয়ে শুরু হয়েছে জোর আলোচনা। বন দফতরের কর্মীদের অনেকের বক্তব্য, একসময় হাতিরা খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে চলে আসে। তার ফলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে হাতিদের বিবাদ হয়। সাধারণ মানুষের আঘাত হাতিদের গায়ে দেখতে পাওয়া যায়। এ ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি হাতির শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে

হাতিগুলি লোকালয়ে চলে গিয়েছিল কিনা সে সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। দুটি হাতিকে চলাচলের অন্য জায়গা থেকে পাওয়া গিয়েছে। ওইসব অঞ্চলে হাতিদের দেখতে পাওয়া যায় না। বন দফতরের বন্যপ্রাণ অপরাধমূলক শাখার কাছে তদন্ত করার আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের এই শাখার কোনও আধিকারিক ছত্তিশগড়ে আসেননি। করোনা ভাইরাসের কারণেই এই মুহূর্তে তারা তদন্ত করছেন না। এমন অনুমান করা হয়েছে। তবে এইভাবে হাতিদের মৃত্যু আরও দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।