ছয় জঙ্গিকে চলছে জেরা, পুলওয়ামার তদন্তের সূত্র ধরে হানা

ফোর্থ পিলার

বিধাননগরের দফতরে এখন দম ফেলার জো নেই। মুর্শিদাবাদ থেকে গ্রেফতার হওয়া ৬ জঙ্গিরা সেখানে রয়েছে। এনআইএ তদন্তকারী আধিকারিকরা জেরা চালাচ্ছেন। পাশাপাশি এসটিএফ হাজির হয়েছে। রাজ্য পুলিশের দল সেখানে রয়েছে। এছাড়াও রাজ্যর তরফে সিআইডির একটি দল বিধাননগরে উপস্থিত হয়েছে। রবিবার দিনভর চলছে জেরা। এই খবর লেখা পর্যন্ত ছয় জঙ্গিকে টানা জেরা করছে তদন্তকারীরা।

একাধিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উঠে আসছে জেরায়। বড়সড় নাশকতার ছক তৈরি করা হচ্ছিল তাদের মাধ্যম দিয়ে। পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার সঙ্গে তাদের যোগসাজশ রয়েছে। এমন কথা এই মুহূর্তে অনুমান করা হচ্ছে। রানীনগর থেকে আবু সুফিয়ানকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ডোমকল থেকে সাকিবকে গ্রেফতার করা হয়। কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে সাকিব পড়াশোনা করছে। একজন ছাত্র জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত। একথা সকলেই হতবাক করেছে। একাধিক ডিভাইজ পাওয়া গিয়েছে তাদের কাছ থেকে।

জানা যাচ্ছে, পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলা ঘটেছিল ভারতীয় সেনাবাহিনীর উপর। কয়েকজন জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়। তদন্তের পর তাদের দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদের সময় একটি ফোন নম্বর পাওয়া যায়। সেই ফোন নম্বর ট্র্যাক করে কেরালা ও পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের সংযোগ পাওয়া যায়। এনআইএ তদন্তকারীরা অপারেশনের ছক কষতে থাকেন। তখন থেকেই ফোন নম্বরটিকে দিনের-পর-দিন ট্র্যাক করা হয়েছে। সবকিছু আটঘাট মেনে তারপরেই শনিবার সকালে অপারেশন চালানো হয়।

জলঙ্গির মধুবনা থেকে মইনুল মণ্ডল, উত্তর ঘোষপাড়া থেকে আতিউর রহমান, ডোমকলের নওদাপাড়া থেকে আল মামুন কামাল ধরা হয়েছে। গঙ্গাদাসপাড়া থেকে নাজমুস শাকিবকে গ্রেফতার করে এনআইএ। তাদের থেকে দেশি পিস্তল, একাধিক মোবাইল ফোন, ডিটোনেটর মিলেছে ধৃতদের থেকে। আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ধৃতরা এনআইএ হেফাজতে থাকবে। আদালতের থেকে এই নির্দেশ গতকালই পাওয়া গিয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় এনআইএ আরও অপারেশন চালাতে পারে। এই কথা অনুমান করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।