টিকটক ভিডিও করতে গিয়ে নিখোঁজ তরুণী, দিশেহারা স্বামী ও পরিবার

ফোর্থ পিলার

টিকটক করার সুবাদে প্রচুর জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছিলেন প্রতিমা মণ্ডল। বাইরে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তাকে ডেকে পাঠানো হচ্ছিল ভিডিও শ্যুট করার জন্য। গত ৩১ জানুয়ারি দিল্লি যাওয়ার জন্য ট্রেন হাওড়া থেকে ট্রেন ধরেন তিনি। তারপর আর খোঁজ মিলছে না। মাঝে একবার বাড়ির লোক তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছিল। তখন জানা যায় ভিকি নামে একটি ছেলের সঙ্গে তিনি রয়েছেন। র‍্যাম্প শো – এর জন্য তিনি দিল্লিতে।

এরপর আর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না তার। প্রতিমা মণ্ডলের স্বামী প্রসেনজিৎ মণ্ডল থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেছেন। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ওই তরুণী নিজের ইচ্ছায় গিয়েছেন বলে কোনও অপহরণের মামলা রুজু করা যাচ্ছে না। প্রতিমা মণ্ডলের বাড়ি হুগলি জেলার চুঁচুড়ার ভগবতীডাঙা এলাকায়। প্রসেনজিৎ মণ্ডলের কোনও স্থির রোজগার নেই। খানিক অভাবের সংসার বলা যায়। তাদের পাঁচ বছরের কন্যাসন্তান রয়েছে।

এ অবস্থায় টিকটক ভিডিও শুরু করেন প্রতিমা। মাত্র ৯ মাসে তার ফলোয়ার হয় ৪ লক্ষ ২৮ হাজার। বিভিন্ন জায়গা থেকে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয় ভিডিও করতে আসার জন্য। প্রতিমা যেতেও থাকেন। প্রসেনজিৎ মণ্ডল বাধা দেননি। বরং আরও দুটি মোবাইল ফোন কিনে দিয়েছিলেন। উপার্জন হচ্ছিল টিকটক ভিডিও থেকে ভালোই। এই অবস্থায় গত মাসে দিল্লি যাওয়ার ডাক আসে। একটি র‍্যাম্প শো – তে পারফর্ম করার জন্য।

ভিকি নামের এক যুবক তাকে ডেকে পাঠায়। প্রতিমাকে শাশুড়ি হাওড়া থেকে ট্রেনে তুলে দিয়েছিলেন। এই মাসের ৪ তারিখ তার ফিরে এসে রাজারহাট যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তার ফোন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। একবার মাঝে প্রতিমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছিল। ভিকির ফোনও বন্ধ। তার টিকটক একাউন্টও উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় চূড়ান্ত দুশ্চিন্তায় পড়েছেন স্বামী ও পরিবারের সদস্যরা। পুলিশ জানাচ্ছে অভিনেত্রী নিজের ইচ্ছেতে গিয়েছেন। তাই কোনও অপহরণের মামলা রুজু করা সম্ভব নয়। নিখোঁজের ডায়েরি করে তদন্ত চলছে। ফোনের লোকেশন ট্র্যাক করার চেষ্টা হচ্ছে। তার সর্বশেষ অবস্থান হায়দরাবাদ বলে জানা গিয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।