ডায়মন্ড হারবার পর্যন্ত হবে মেট্রো, বেহালায় প্রচারে বললেন মমতা

ফোর্থ পিলার

বেহালা পূর্ব ও পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনী জনসভায় এসে মেট্রোরেল প্রকল্পকে হাতিয়ার করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জোকা মেট্রো আগামী দিনে দ্রুত তৈরি হয়ে যাবে। তিনি কাজে হাত লাগালে বেশি সময় লাগবে না। এই কথা জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয় ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্প তার সময় তৈরি হয়েছিল। তিনি রেলমন্ত্রী থাকাকালীন কলকাতার মেট্রোরেল প্রকল্প ডানা মেলে। একথাও পরিষ্কার সভামঞ্চ থেকে বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এছাড়াও আগামী দিনে তিনি ডায়মন্ডহারবার পর্যন্ত মেট্রো রেল পরিষেবা চালু করবেন। এই কথা ঘোষণা করেন। ভোটের প্রচারে কার্যত মেট্রোরেলকে প্রচারের হাতিয়ার করলেন তিনি। রাজনৈতিক মহল যথেষ্ট হতবাক হয়েছে। এই বিষয়ে একাংশ বলছে উন্নয়নের ক্ষেত্রে এই অঞ্চলের বহুদিনের দাবি মেট্রোরেল প্রকল্প। দীর্ঘ সময় ধরে এখানে জোকা পর্যন্ত মেট্রো রেলের কাজ থমকেছিল। এখনও ধীর গতিতে কাজ হচ্ছে। জমি সমস্যায় মেট্রোরেল প্রকল্প আটকে ছিল দীর্ঘদিন। ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রী মেট্রোরেল ইস্যুতে হাওয়া তুলতে চাইছেন।

আগামী ১০ তারিখ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ১৫ টি আসনে ভোট হবে। বেহালা পূর্ব ও বেহালা পশ্চিমেও ভোট। আজ বৃহস্পতিবার শেষ প্রচার। প্রচারের শেষ জনসভায় বক্তব্য রাখেন মমতা। দুই প্রার্থী রত্না চট্টোপাধ্যায় ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের  সমর্থনে ভোট চান তিনি। উন্নয়নের পাশাপাশি বেহালার সামগ্রিক পরিস্থিতির উল্লেখ করেন তিনি। এছাড়াও মেট্রো রেল প্রকল্পের কথা বক্তব্যে উঠে আসে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বেহালার বেহাল দশা ছিল। আমরা তার উন্নতি ঘটিয়েছি। যোগাযোগ ব্যবস্থা, সড়কপথ, নিকাশী ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে এখানে। আগামী দিনে এখানে জল জমার সমস্যাও থাকবে না। আমরা এডিবি থেকে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়েছি। শোধ করতে কষ্ট হবে, তবুও কাজের জন্য তা আমরা করেছি। নিকাশী ব্যবস্থা নিয়ে আর কোনও অভিযোগ থাকবে না।” মমতা আরও বলেন, ”আগের মেয়রকে বলতাম, কেন এখানে রাস্তার এই অবস্থা। জানেন তো আমি কাউন্সিলরের চেয়ে ভাল কাজ করি। কোথাও সামান্য গন্ডগোল দেখতে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিই। সেভাবেই এখানকার রাস্তাঘাট দেখে দ্রুত মেরামতির কথা বলেছিলাম।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।