নিজের শহরে ফেয়ারওয়েল, ছেলেকে মনে করে চোখে জল বাইডেনের

ফোর্থ পিলার

চোখে জল আমেরিকার বর্তমান প্রেসিডেন্টের। নিজের শহর থেকে বিদায় নিয়েছেন জো বাইডেন। তাকে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ফেয়ারওয়েল জানানো হয়। সেখানেই তিনি আবেগঘন হয়ে পড়েন। নিজের ছেলেকে খুঁজে বেড়িয়েছেন। জো বাইডেন জানিয়েছেন, তার ছেলের হয়তো প্রেসিডেন্ট হওয়ার উচিত ছিল। কিন্তু এই বয়সে তাকে হতে হচ্ছে। জো বাইডেনের পুত্র মারা গিয়েছেন। ফেয়ারওয়েল অনুষ্ঠানে তাকে মনে করেছেন জো বাইডেন।

আমেরিকার সময় ২০ জানুয়ারি হোয়াইট হাউসে শপথ নেবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ক্ষমতা হস্তান্তর হবে। ওয়াশিংটনে তিনি পৌঁছে গিয়েছেন আগেই। নিজের শহর উইলমিংটনে সাধারণ মানুষ তাকে শুভেচ্ছা জানান। সেই অনুষ্ঠানে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি জো বাইডেন। তিনি বলেন, “আমি দুঃখিত। একটু আবেগঘন হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু আমি যখন মারা যাব, ডেলাওয়ার আমার হৃদয়ে থাকবে। আমার খালি একটাই আক্ষেপ, আমার ছেলে আজ এখানে নেই। কারণ, ওকেই তো প্রেসিডেন্ট হিসেবে তুলে ধরা উচিত ছিল।”

জো বাইডেনের পুত্র নিজেও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে ওয়াশিংটনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট। পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেনকে স্বাগত জানাতে আমেরিকা তৈরি হয়ে গিয়েছে। হোয়াইট হাউসে সাজো সাজো ব্যবস্থা। হোয়াইট হাউস ঘিরে রয়েছে ন্যাশনাল গার্ড ট্রুপস। হাতে গোনা সাধারণ মানুষ উপস্থিত থাকবেন এই অনুষ্ঠানে। অতি সম্প্রতি ক্যাপিটাল হাউসে হামলার ঘটনা ঘটেছিল। সেখান থেকে আরও কড়া নজরদারি শুরু হয়ে গিয়েছে। প্রশাসন এবার আরও সজাগ। গোটা ওয়াশিংটন নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে। এফবিআই জানিয়েছিল, প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণের দিনে আক্রমণ হতে পারে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প জো বাইডেন সম্পর্কে কখনওই ভালো কথা বলেননি। শেষ প্রহরে এসে বাইডেনকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বাইডেনের সাফল্য কামনা করেছেন ট্রাম্প। দীর্ঘদিন ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রকাশ্যে আসেননি। দেশের বিতর্কিত রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম আমেরিকার ইতিহাসে লেখা হয়ে গিয়েছে অচিরে। তার অনুপ্রেরণায় রীতিমতো হামলা হয়েছে আমেরিকার সেনেটে। মারা গিয়েছেন পাঁচজন। ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমস্ত সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট অ্যাকাউন্ট বন্ধ। টুইটার তিনি আর কখনও ব্যবহার করতে পারবেন না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।