নিম্নচাপে মুষলধারা, হাঁসফাঁস থেকে রেহাই পেল দক্ষিণবঙ্গ

ফোর্থ পিলার

নিম্নচাপে দক্ষিণবঙ্গের ভারী বর্ষণ চলছে। গতকাল রাত থেকেই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় বৃষ্টি শুরু হয়। এই মুহূর্তে দক্ষিণবঙ্গের উপর ঘন মেঘের আস্তরণ। ভারী বৃষ্টি চলছে সকাল থেকেই। উত্তর বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত হয়েছে নিম্নচাপ। তার জেরে মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ভারী বৃষ্টি হবে এই রাজ্যে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর এই কথা আগেই জানিয়েছে। পরিস্থিতির উপর সম্পূর্ণ নজর রাখা হচ্ছে।

দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই এই মুহূর্তে ভারী বৃষ্টি চলছে। গতকাল রাত থেকেই কলকাতা ও সংলগ্ন জেলাগুলিতে দফায় দফায় বৃষ্টি হয়েছে। বেশ কিছু জায়গায় জল জমেছে দক্ষিণ কলকাতার। আজ থেকে আগামী ৪৮ ঘন্টা ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে। হাওয়ার গতিবেগ ঘন্টায় ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে বলে খবর।

আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, এই গভীর নিম্নচাপের কারণে আরও শক্তিশালী হচ্ছে মৌসুমী অক্ষরেখা। যার ফলে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। উত্তরবঙ্গ বাদ যাবে না। সেখানেও আগামী ৪৮ ঘন্টা বৃষ্টি চলবে। মঙ্গল থেকে বৃহস্পতি এই নিম্নচাপের প্রভাব পড়বে রাজ্যে। মঙ্গলবার থেকে মৎস্যজীবীদের মাছ ধরতে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সমুদ্র উত্তাল থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

মূলত দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমের জেলাগুলিতে এই নিম্নচাপের বেশি প্রভাব পড়বে। তবে কলকাতা সহ আশেপাশের জেলা যথেষ্ট বৃষ্টি পাবে। মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার দুর্যোগের সম্ভাবনা রয়েছে এই মুহূর্তে। দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, দুই বর্ধমান, হাওড়া, হুগলি জেলায় বৃষ্টি হবে। কলকাতা, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মুর্শিদাবাদ, নদিয়াতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া বেশ কয়েকদিন ধরেই ভ্যাপসা গুমোট অবস্থানে রয়েছে। বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ অত্যন্ত বেশি। পাশাপাশি প্রচন্ড গরম। তার ফলে এক হাঁসফাঁস অবস্থা হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। বৃষ্টি শুরু হতেই কিছুটা শান্ত হয়েছে পরিবেশ। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড থাকছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড থাকছে।

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির আবহাওয়া জারি থাকছে। এই নিম্নচাপের কারণে উত্তরবঙ্গতে ভারী বৃষ্টি হবে। আজ দার্জিলিং, কালিম্পং, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়িতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হবে। কাল থেকেই সেই বৃষ্টি চলছে। আগামী কাল ভারী বৃষ্টির পরিমাণ কমবে। আগামী কাল থেকে মালদা ও অন্যান্য জেলায় ভারী বৃষ্টি হবে বলে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।