পরের সেমেস্টারে কলেজে দেখা হবে, এবার টুইট করে রসিকতায় নামলেন সানি লিওন

ফোর্থ পিলার

বন্ধুদের সঙ্গে দক্ষিণ কলকাতার গলিতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী। ক্লাসে তার পাশে বসার জন্য হুড়োহুড়ি বেঁধে গিয়েছে। প্রফেসররা কিভাবে ক্লাস নেবেন? তা নিয়ে ব্যতিব্যস্ত। কখনও নিজের গাড়িতে এসে নামছেন কলেজের সামনে। আবার কখনও যতীন দাস মেট্রো স্টেশনে সিঁড়ি দিয়ে তিনি উঠে আসছেন কলেজ যাওয়ার জন্য। যদি সত্যি চরিত্রের নাম, সানি লিওন হয়! তাহলে কি হবে? চোখের সামনে গোটা বিষয়টি বর্ণনা করলেই আত্মহারা হতে হয় নিশ্চয়ই।

আশুতোষ কলেজে ভর্তি হওয়ার বিষয় নিয়ে সানি লিওন যথেষ্ট উদগ্রীব। এই কথা মজার ছলে কার্যত বোঝা গিয়েছে। কলকাতার আশুতোষ কলেজে তিনি সত্যিই ভর্তি হতে চান। সানি লিওন লিখেছেন, আশা করি পরের সেমিস্টারে কলেজে দেখা হবে। এই টুইট – এর উপর ভিত্তি করে ফের শুরু হয়েছে নতুন জল্পনা। হাসি-ঠাট্টার রোল উঠেছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। তাহলে সত্যিই কি আগামী সময় আশুতোষ কলেজের পাশের গলিতে ঠেক মারতে দেখা যেতে পারে সানি লিওনকে? অথবা টকজল দিয়ে ঝাল ঝাল ফুচকা খাবেন সানি লিওন?

আশুতোষ কলেজের ইংরেজি বিভাগের তালিকা প্রকাশিত হয়েছিল গতকাল। বৃহস্পতিবার দেখা গিয়েছিল তালিকায় প্রথম নাম রয়েছে সানি লিওনের। সেই নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছিল। হইচই হয়েছিল। এবার সেই বিষয়ে টুইট করলেন খোদ সানি লিওন। এই মুহূর্তে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে আশুতোষ কলেজের তালিকায় নাম বেরোনোর কথা তার কাছেও পৌঁছে গিয়েছে। ভারতীয় সময় আজ দুপুরে সানিলিওন টুইট করেছেন।

সানি লিখেছেন, পরের সেমিস্টারে কলেজে দেখা হবে। সবাইকে ক্লাসে থাকার আবেদনও জানিয়েছেন তিনি। সানি লিখেছেন, “আশা করি তোমরা সবাই আমার ক্লাসে থাকবে। পরের সেমিস্টারে কলেজে দেখা হবে।” এমন হলে কলেজে গান উঠতেই পারে…. আজ দিল হে সানি সানি….। অভিনেত্রীর এই টুইট করা মজা নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে। প্রত্যেকেই সানির এহেন রসিকতা নিয়ে হেসে ফেলেছেন আরও বেশি।

দক্ষিণ কলকাতার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আশুতোষ কলেজ। ইংরাজি নিয়ে সেখানেই পড়াশোনা করতে চান সানি লিওন। তাঁর অ্যাপ্লিকেশন নম্বর ৯৫১৩০০৮৭০৪। রোল নম্বর ২০৭৭৭৭-৬৬৬৬! ইয়ার অব পাস ২০২০! পশ্চিমবঙ্গের উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ থেকে পাশ করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, বেস্ট অব ফোরে তাঁর প্রাপ্ত নম্বর ৪০০। তার মানে প্রতিটি পরীক্ষায় পূর্ণমান পেয়েছেন তিনি। আর সেই হিসেবে মেধা তালিকাতেও সবার প্রথমেই রয়েছে তার নাম।

ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে এই বিষয় নিয়ে তুমুল আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে এই মেধা তালিকার স্ক্রীনশট ঘুরতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার এই মেরিট লিস্ট প্রকাশিত হয়েছিল। কলেজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিষয়টি ভুল হয়েছে। আবেদনপত্র সঠিক নয়। ঠিক করে পরবর্তীকালে প্রকাশ করা হবে। কিন্তু কি করে এমন ভুল হল? তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। অনেকেই মনে করছেন, অনেক বেশি সংখ্যায় এবার আবেদনপত্র জমা পড়েছে। সে কারণেই কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা হয়ে থাকতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।