পাকিস্তানের মানুষ কি শ্রীরাম বলবে? মমতাকে প্রশ্ন অমিত শাহের

ফোর্থ পিলার ;

জয় শ্রীরাম ধ্বনিকে হাতিয়ার করে এবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃনমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের ঘাটালে নির্বাচনী প্রচারে এসে অমিত শাহ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, ভারতের মানুষ জয় শ্রীরাম বলবে না তো কি পাকিস্তানের মানুষ জয় শ্রীরাম বলবে?

এদিন বক্তব্যের শুরুতেই জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি নিয়ে মমতাকে আক্রমণ করেন শাহ। বলেন, বাংলায় ‘জয় শ্রী রাম’ বলায় মমতাদির আপত্তি আছে। ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতীক রাজা রামচন্দ্রের নাম নিতে ভারতের মাটিতে কি কেউ বাধা দিতে পারে?  রামের নাম ভারতে নেবে না তো কি পাকিস্তানে নেবে?  এর পরই দুহাত তুলে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি দেন অমিত শাহ।

অমিত শাহ বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যত মামলা করতে ইচ্ছা হয় করুন। কিন্ত ভারতীয় সংস্কৃতি থেকে আমাকে বিচ্যূত করতে পারবেন না। অমিত শাহ  বলেন, বাংলা ভাষার গরিমার কথা বলে ক্ষমতায় এসেছিলেন মমতা। কিন্ত ক্ষমতায় এসে ইসলামপুরে স্কুলে ছাত্রদের দাবি অগ্রাহ্য করে উর্দু শিক্ষক নিয়োগ করেছেন তিনি। প্রতিবাদ করায় ছাত্রদের বুকে গুলি চালিয়েছে তাঁর পুলিস। আপাতত সেই পুলিসকর্মীদের মমতা সরকার বাঁচালেও বিজেপি ক্ষমতায় এলেই তাদের শাস্তি হবে।

নির্বাচনী প্রচারে বারবার নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী বলে মানি না বলে দাবি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার উত্তরে অমিত শাহ বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি সংবিধান মানেন? সেই সংবিধান অনুসারে দেশের মানুষের সমর্থনে প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানলেন কি মানলেন না তাতে কিস্যু যায় আসে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।