পাক সীমান্ত এলাকায় এবার ‘রাইফেল উইমেন’, নজির ভারতীয় সেনায়

সৌম্যজ্যোতি মন্ডল

জলপাই উর্দি। হাতে রাইফেল। ভারী বুটের শব্দ। কাশ্মীর মানে যেমন প্রকৃতির মোহময়ী রূপ। তেমনি ভূস্বর্গে পা দিলে এগুলিও একদম চেনা ছবি। কিন্তু এবারের এই চেনা ছবিটা একটু অন্যরকম। এতদিন দেখেছেন রাইফেল মেন। এবার থেকে কাশ্মীরে দেখা যাবে রাইফেল উইমেন। এই প্রথম জম্মু কাশ্মীরের লাইন অফ কন্ট্রোলে নিরাপত্তার দায়িত্বে এলেন দেশের মহীয়সীরা।

সেনার রুক্ষ উর্দির আড়ালে রয়েছে কোনও এক বোন বা মায়ের কোমল মুখ। যে কোমল মুখে দেখা মিলবে একজোড়া বজ্র কঠিন চোখেরও। যে চোখ দেশের সীমান্ত পাহারা দেবে। ভারত – পাকিস্তান সীমান্তে এবার থেকে পুরুষদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করবেন অসম রাইফেলসের ‘ রাইফেল উইমেন’রা| ‘

কাশ্মীরের সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিকে সন্ত্রাসবাদীদের হাত থেকে মুক্ত করতে ভারতীয় সেনার অভিযান চলতেই থাকে। পাক অধিকৃত কাশ্মীর লাগোয়া সাধনা পাস। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় দশ হাজার ফুট উঁচুতে। সংবেদনশীল এলাকা। আশেপাশে রয়েছে প্রায় ৪০ টি গ্রাম। বিভিন্ন কাজে প্রতিদিনই অনেক গাড়ি এপার ওপার করে। এলাকাগুলিতে রয়েছে প্রচুর মহিলা।

যাদের পুরুষ সৈন্যরা সঠিকভাবে তল্লাশি নিতে পারে না। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগায় সন্ত্রাসবাদীরা। জানা যাচ্ছে সেই সমস্যার সমাধানের এবার সীমান্তে পাঠানো হয়েছে মহিলা সেনাদের। আপাতত একজন মহিলা অফিসারের নেতৃত্বে ছয় জন মহিলা জওয়ান থাকবে। যাদের প্রধান কাজ মহিলাদের তল্লাশি নেওয়া। এছাড়াও জালনোট কারবার , অস্ত্রপাচার প্রভৃতির দিকেও নজর রাখবে তারা।

জানা গিয়েছে, অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই স্থানীয়দের সঙ্গে মিশে গিয়েছেন মহিলা জওয়ানরা। ভাইরাল হওয়া বেশ কিছু ছবি এবং ভিডিও দেখা গিয়েছে। ডিউটি চলাকালীন স্থানীয়দের সঙ্গে খোশমেজাজে কথা বলছেন তারা। পুরুষ জওয়ানদের হাতে রাখীও বেঁধে দিয়েছেন।

অযোধ্যায় রামমন্দিরের শিলান্যাস। ৩৭০ ধারা লোপের বর্ষপূর্তি। দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতি। সবকিছুর মাঝে সীমান্তে মা দুর্গাদের পাঠিয়ে অলক্ষ্যেই এক ইতিহাস গড়ল ভারত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।