প্রকাশ্য রাস্তায় জ্বালিয়ে দেওয়া হোক চারজনকে, মেয়ে যেভাবে পুড়েছিল, চাইছেন মা

ফোর্থ পিলার

ক্ষোভে ফুঁসছে তেলেঙ্গানা। রাস্তায় নেমে চলছে বিক্ষোভ। ধর্ষকদের তাদের হাতে তুলে দিতে হবে। তারাই বিচার করবে। এমনটাই দাবি সাধারণ মানুষের। তরুণীর বাড়িতে নিস্তব্ধতা। আর ফিরবে না মেয়ে। শরীর কালো হয়ে গিয়েছিল ঝলসে।

তরুণীর মায়ের দাবি, যেভাবে তার মেয়েকে পুড়িয়ে মারা হয়েছে ঠিক সেভাবেই প্রকাশ্য রাস্তায় আগুন ধরিয়ে ওই চারজনকে পুড়িয়ে মারা হোক। আর কোনও ন্যায় বিচারের কথা তারা এই মুহূর্তে ভাবছেন না। নির্ভয়া মৃত্যু নাড়িয়ে দিয়েছিল দেশকে। হায়দরাবাদের চিকিৎসক মৃত্যুর ঘটনায় আরও একবার দেশের মহিলাদের উপর আক্রমণের নগ্ন চেহারা বেরিয়ে পড়েছে।

অভিযুক্ত মহম্মদ আরিফ, জোল্লু শিবা, জোল্লু নবীন ও চিন্তাকুন্তা চেন্নাকেশাভুলুকে গতকাল থেকে জেরা চলছে। তেলেঙ্গানার শাহনগরের ম্যাজিস্ট্রেট তাদের ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে কেন তাদের তোলা হল না সে নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তবে জানা যাচ্ছে মহাবুবনগর ফাস্ট ট্র‍্যাক কোর্ট রয়েছে। সেখানে শনিবার বিচারক ছিলেন না। তাই শাহনগর থানাতেই ম্যাজিস্ট্রেটকে এই ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ শোনাতে হয়েছিল।

প্রশাসনও চাইছে কঠিন শাস্তি পাক এই চার অভিযুক্ত। কোনও আইনজীবী তাদের হয়ে দাঁড়াচ্ছেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। দেখা যাচ্ছে চারজন নির্লিপ্তভাবে থানাতে দাঁড়িয়ে রয়েছে। পাশবিক ঘটনার পরেও তাদের খুব একটা বিকার নেই৷ জেরা করে সেই রাতের যে কথা পুলিশ জানতে পারছে, তাতে হাড়হিম হয়ে গিয়েছে কর্তাদেরও। নির্যাতনের ঘটনা তাদের নাড়িয়ে দিয়েছে পুলিশ কর্মীদেরও।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।