প্রেমিকা ছেড়ে চলে গিয়েছে, নির্দিষ্ট দিনে নিজেকেই বিয়ে করলেন যুবক

ফোর্থ পিলার

এনগেজমেন্ট হয়ে গিয়েছিল গত বছর। সামাজিক বিয়ে অক্টোবরের শেষে হওয়ার কথা ছিল। প্রবল মনোমালিন্য, ঝগড়াশুরু হয় ভাবি দম্পতির মধ্যে। শেষপর্যন্ত প্রেমিকা বিয়ে ভেঙে দেন। সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি। সম্পর্ক ভাঙা যুবক কোনওরকম কান্নায় ভেঙে পড়েননি। বরং বিয়ের আসর একই রকম জাঁকজমক হয়ে কেটেছে। নির্দিষ্ট দিনে বিয়ে করেছেন তিনি। এই মুহূর্তে সেই ঘটনা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ভাইরাল হয়েছে।

সম্পর্ক ভেঙে গিয়েছে তো কি? নিজেকে তো ভালো রাখতে হবে। সেই লক্ষ্যে যুবক নিজেই নিজেকে বিয়ে করেছেন। তাও আবার সম্পূর্ণ রীতি, আচার-অনুষ্ঠান মেনে। নিমন্ত্রিতরাও এসেছেন সেই বিয়েতে। হতবাক করা ঘটনাটি ব্রাজিলের। নেটিজেনরা এইচ খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখে বিস্তার শেয়ার করেছেন। সম্পর্কে মন ভাঙলে কোনওভাবে ভেঙে পড়া নয়। এই কথা অন্যভাবে প্রচারিত হচ্ছে এখন।

ব্রাজিলের বাসিন্দা ৩৩ বছরের ডক্টর দিয়েগো রেবেলো সঙ্গে ভিক্টর বুয়েনোর সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল। দুজনেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। গত বছর নভেম্বর মাসে এনগেজমেন্ট হয়ে তাদের। শীতের শুরু সেইসময়। সম্পর্ক মধুর। তারপরে কেটে গিয়েছে গ্রীষ্মকাল। ঠিক হয়ে গিয়েছিল চলতি বছর অক্টোবর মাসের শেষে তারা সামাজিক ভাবে দাম্পত্য জীবন শুরু করবেন। কিন্তু দুজনের মধ্যেই শুরু হয়ে যায় বিস্তর গন্ডগোল। পরিস্থিতি এমন হয়, ঝগড়া অশান্তি লেগে থাকছে প্রতিদিন।

এই অবস্থায় একসঙ্গে থাকা সম্ভব নয়। এই কথা জানিয়ে দিয়েছিল ভাবি স্ত্রী। জুলাই মাসে এনগেজমেন্ট ভেঙ্গে বেরিয়ে যান তিনি। হতাশা এসেছিল। কিন্তু বাইরে প্রকাশ করেননি কিছুই। বরং ঠিক করেছিলেন এই বিষয়টিকেও উদযাপন করা হবে। বিয়ের দিন ঠিক হয়ে গিয়েছিল আগেই। লোকজন নিমন্ত্রিত হয়েছিল। করোনা ভাইরাস আবহে ৫০ জন নিমন্ত্রিত থাকতে পারবেন। তাদের কাউকেই বিয়ে ভাঙ্গার কথা বলা হয়নি। নির্দিষ্ট দিনে আসর বসে বিয়ের।

৩৩ বছরের যুবক সাজলেন সম্পূর্ণ বিয়ের সাজে। ফুরফুরে মেজাজ, ঝকঝকে হাসি তার মুখে। পাত্রীকে কোথাও দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। উপস্থিত আমন্ত্রিতরা কিছুটা হতবাক সেই সময় থেকেই। বিয়ের সময় জানা গেল পাত্রী নেই। ভেঙে গিয়েছে তাদের সম্পর্ক কিন্তু তাতে কি? নিজেকে তো ভালো রাখতে হবে। সেই কারণে রেবেলো নিজেকেই বিয়ে করছেন। আর সেই বিয়ে হয়েছে সম্পূর্ণ নিয়ম-নীতি মেনে।

এই বিয়ের কথা শুনে নিমন্ত্রিতরাও হতবাক হয়েছিলেন। পরে সকলেই বিষয়টিকে অত্যন্ত সদর্থক ভাবে মেনে নেন। বিয়ের অনুষ্ঠানও অত্যন্ত মজার মধ্যে দিয়েই হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।