‘বাংলা কাশ্মীর হতে চলেছে’, রাজ্যের ভোটের ফলাফল নিয়ে টুইট কঙ্গনার

ফোর্থ পিলার

বিতর্কের জন্য বিখ্যাত বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। এককথায় যেখানে কঙ্গনা সেখানেই বিতর্ক। বি টাউনে দেশভক্তি ও মোদী ভক্তি নিয়ে কঙ্গনার কোনও দোসর নেই বলায় যায়। তবে এবারে বি টাউনের কন্ট্রোভার্সি কুইন কঙ্গনা বাংলার ভোটের ফলাফল ও নির্বাচন নিয়ে টুইটে ঝড় তুলেছেন। বিতর্কিত মন্তব্য করতে একবারও পিছপা হননি।

এবারে বাংলাতে হ্যাট্রিক করে সরকার গড়ে তুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলায় ফের আসতে চলেছে তৃণমূল। গণনা শুরুর সময় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চললেও, শেষের দিকে জল পরিষ্কার হতে থাকে। তখন দেখা যায় প্রতিপক্ষ দল বিজেপিকে পিছনে ফেলে জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল। ২১৩ টি আসনে জয়ী জোড়া ফুল। অন্য দিকে তিন সংখ্যার ঘরে প্রবেশ করতে পারেনি পদ্মফুল। এ নিয়েই টুইটে মন্তব্য করে ফের বিতর্ক দুনিয়ায় ভাসমান কঙ্গনা রানাওয়াত।

তিনি টুইটে লিখেছেন “বাংলাদেশি আর রোহিঙ্গারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবচেয়ে বড় শক্তি। যা ট্রেন্ড দেখছি, সেখানে হিন্দুর আর সংখ্যাগরিষ্ঠতায় নেই। তথ্য অনুযায়ী, বাংলার মুসলিমরা সবথেকে গরিব ও বঞ্চিত। ভালো, বাংলাও একটা কাশ্মীর হতে চলেছে।” এতটুকুতে ক্ষান্ত নন বলি কুইন। তিনি আরও একটি টুইটে মন্তব্য করেছেন “মোদী – শাহ খুবই ভালো কাজ করেছেন। তিনটে আসন থেকে এতোগুলো আসন পেয়েছেন। তবে এই মুহূর্তে বাংলাতে প্রয়োজন এনআরসি এবং সিএএ -এর।”

মোদির হয়ে কঙ্গণা টুইট করেছেন “মোদিজি দেশকে নেতৃত্ব দিতে জানেন না। কঙ্গনা রানাওয়াত অভিনয় করতে জানেন না। সচিন টেন্ডুলকর ব্যাট করতে জানেন না। আর লতাজি গান করতে জানেন না। কিন্তু এই ট্রোল করা লোকগুলো সবই জানেন। দয়া করে এই মোদিজিকে উৎখাত করা হোক। এই ট্রোলিং করা লোকগুলোর বিষ্ণু অবতারকে ভারতের আগামী প্রধানমন্ত্রী করা হোক।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।