ব্রিটেন ও দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার আরও একটি নতুন স্ট্রেন

ফোর্থ পিলার

ব্রিটেনে করোনা ভাইরাসের নতুন স্ট্রেন দেখা দিয়েছে। সংক্রমণ অতি দ্রুত ছড়ায় এই করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে জানা যাচ্ছে। আরও একটি নতুন স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায় সেই দেশ থেকে কিছু মানুষ ব্রিটেনে যাওয়া-আসা করেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এই নতুন সংক্রমণ ব্রিটেনে এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ব্রিটেনকে এই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল। তাই দ্রুত এই নতুন সংক্রমণ সম্পর্কে ধারণা করা যায়।

রোগীদের চিহ্নিতকরণ করে দ্রুত তাদের চিকিৎসা করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাস চিকিৎসা আরও জোরদার করা হয়েছে। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন ব্রিটেনের স্ট্রেনের থেকেও দক্ষিণ আফ্রিকার এই স্ট্রেন আরও বেশি ছোঁয়াচে। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যারা ব্রিটেনে গিয়েছেন তাদের প্রত্যেককে আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা হচ্ছে। ব্রিটেনের সঙ্গে ইতিমধ্যে প্রায় সব দেশ তাদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করতে শুরু করেছে। মূল উদ্দেশ্য নতুন এই স্ট্রেনকে বাড়তে না দেওয়া। ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক জানাচ্ছেন, বাইরে থেকে যারা আসছেন, তাদের উপর নজর রাখা হচ্ছে।

ব্রিটেনের নতুন স্ট্রেন রীতিমতো দুশ্চিন্তায় ফেলেছে বিজ্ঞানীদের। করোনা ভাইরাস তার চরিত্র দ্রুত বদল করে আরও বেশি ছোঁয়াচে হয়ে উঠেছে। বি.১.১.৭ ভাইরাল স্ট্রেন এই মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়েছে ব্রিটেনে। দক্ষিণ আফ্রিকায় সার্স কভ ২ ভাইরাসের এই নয়া ভ্যারিয়ান্টের নাম নাম ‘৫০১. ভি২’। আরও অনেক বেশি এর সংক্রমণ ক্ষমতা। কতজন নতুন এই করোনা সংক্রমণে শিকার হয়েছেন? এখনও জানা যাচ্ছে না সেটি।তবে বিজ্ঞানীদের বক্তব্য দ্রুত তাদের সুস্থ করা যাবে। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ কথা দ্রুত এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু দ্রুত মানুষ মারা যাবেন, এমনটা নয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।