মহিলা অফিসিয়ালকে বল দিয়ে আঘাত, ইউএস ওপেন থেকে বাদ জোকোভিচ

ফোর্থ পিলার

যুক্তরাষ্ট্র ওপেন থেকে বেরিয়ে গেলেন এই মুহূর্তে এক নম্বর টেনিস তারকা জোকোভিচ। খেলার মাঝে মেজাজ হারিয়েছিলেন তিনি। মহিলা লাইন অফিশিয়ালকে বল দিয়ে আঘাত করেন টেনিস তারকা। প্রায় দশ মিনিটের উপর তার শুশ্রূষা করতে হয়। এই ঘটনার জন্য ম্যাচ রেফারি জোকোভিচকে শাস্তি দেন। প্রতিপক্ষকে ম্যাচ জিতিয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি টুর্নামেন্ট থেকেও সরে দাঁড়াতে হল এই টেনিস তারকাকে।

এই ইউএস ওপেনের ম্যাচে জোকোভিচের প্রতিপক্ষ ছিলেন স্পেনের পাবলো ক্যারেনো বুস্টার। ৫ -৬ গেমে প্রথম সেটে হারছিলেন জোকোভিচ। গুরুত্বপূর্ণ সার্ভিস পয়েন্টে তিনি মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। বল ছুঁড়ে মারেন মহিলা লাইন অফিশিয়ালকে। তার গলায় গিয়ে বলটি লাগে। পড়ে যান লাইন অফিশিয়াল। ম্যাচ রেফারি থেকে অন্যান্যরা ছুটে আসেন তার দিকে। সে সময় কথা বলা কোন ছাড়, শ্বাস পর্যন্ত নিতে পারছিলেন না তিনি। মাঠেই কিছু সময় তার চিকিৎসা হয়। তিনি সুস্থ অনুভব করেন।

মেজাজ হারানোর ফলে জোকোভিচ এই কাজ করেছেন। তা পরিষ্কার। জোকোভিচকে দেখা যায় হাতজোড় করে ক্ষমা চাইতে। কিন্তু এই কাজের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা যথেষ্ট নয়। সিদ্ধান্ত হয় পাবলোকে ম্যাচ জিতিয়ে দেওয়া হবে।জোকোভিচ হাত মিলিয়ে কোর্ট থেকে বেরিয়ে যান। ইউএস ওপেন চ্যাম্পিয়নশিপ টুর্নামেন্ট থেকেও বাদ পড়লেন জোকোভিচ। এই ঘটনা টেনিস ইতিহাসে অনভিপ্রেতও।

কোর্টের মধ্যে জোকোভিচ অত্যন্ত মজার মানুষ। প্রত্যেককে সঙ্গেই তিনি ঠাট্টা ইয়ার্কিতে মশগুল থাকেন। সেজন্য তাকে জোকার বলেও সম্বোধন করা হয়। কিভাবে তিনি এই কাজ করলেন! সকলেই অবাক হয়েছেন। তিনি নিজে তার ব্যবহারের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। ইচ্ছাকৃত এই কাজ তিনি করেননি। তাও বলেছেন। সেই কথা মেনে নিয়েছেন ম্যাচ রেফারিও। কিন্তু শাস্তি মকুব করা হয়নি।

এই মুহূর্তে জোকোভিচ টেনিস দুনিয়ায় পুরুষদের মধ্যে এক নম্বর তারকা। ১৭ টি গ্র্যান্ডস্ন্যাম পেয়েছেন তিনি। এবারে এই টুর্নামেন্টে জেতার অন্যতম দাবিদার ছিলেন এই টেনিস তারকা। রজার ফেডেরার এবার খেলছেন না। এই টুর্নামেন্ট থেকে অনেক আগেই নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন রাফায়েল নাদাল। কাজেই সার্বিয়ান টেনিস তারকার এবারে গ্র্যান্ডস্লাম জেতার সম্ভাবনা ছিল। আখেরে নষ্ট হল সম্পূর্ণ প্রতিযোগিতা।

করোনা ভাইরাস আবহে জোকোভিচকে একাধিক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল। টেনিস টুর্নামেন্টের আয়োজন করা, নিজে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা —- সব কিছুতেই অনেক বেশি সমস্যা দেখা দিয়েছিল। সেই সব কারণেই তিনি মাঠের মধ্যে মেজাজ হারিয়ে ফেলছেন। একথা মনে করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।