মারাদোনা অমর হয়ে থাকবেন, মর্মাহত মেসি

ফোর্থ পিলার

কে বড়? মারাদোনা নাকি মেসি? এই বিতর্ক এক দশক ধরে চলে আসছে। দুজনেই আর্জেন্টিনার বরপুত্র। দুজনের পায়ে ভর করে গোটা বিশ্বের কাছে আর্জেন্টিনা ফুটবলে সমাদৃত। ফুটবলের রাজপুত্র দিয়েগো আর্মান্দো মারাদোনা মারা গিয়েছেন হৃদরোগে। তার জীবন থমকে গিয়েছে মাত্র ৬০ বছর বয়সে। লিওনেল মেসি তার মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত। তিনি কিছুতেই মারাদোনার মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না।

১৯৮৬ সালের মেক্সিকো বিশ্বকাপ একা জিতিয়েছিলেন মারাদোনা। আর্জেন্টিনা ফুটবল ইতিহাসে এক অন্যতম নাম হয়ে উঠেছিল। মারাদোনা হয়ে উঠেছিলেন অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। তার রাজ্যপাটে তারপর আর কেউ থাবা বসাতে পারেনি। প্রতিটি খেলায় মারাদোনা তার বাঁ পায়ের জাদু দেখিয়েছেন। দীর্ঘ সময় পরে আর্জেন্টিনা দলে যোগ দিয়েছিলেন আরেক বরপুত্র লিওনেল মেসি। আজকের ফুটবল প্রজন্মে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো বনাম মেসি, এই নিয়ে দ্বৈরথ চলে। আর্জেন্টিনার বর্তমান ফুটবল নায়ক মেসি কিন্তু বরাবর মারাদোনাকে স্মরণ করে এসেছেন।

মৃত্যুর কথা শোনার পরে কার্যত থমকে গিয়েছেন মেসি। কে বড়, মারাদোনা নাকি মেসি! এই নিয়ে তর্ক কম হয়নি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। গতকাল লিখেছেন মেসি। তার বক্তব্যের, ” সকল আর্জেন্টাইন ও সমগ্র বিশ্বের সবার জন্য কষ্টের দি। তিনি আমাদের ছেড়ে গেছেন। কিন্তু একবারে চলে যাননি। দিয়েগো মারাদোনা অমর। আমি তার সঙ্গে কাটানো সকল সুন্দর মুহূর্ত নিজের কাছে রেখে দিয়েছি। তার পরিবার ও কাছের বন্ধুদের জন্য আমার সহমর্মিতা। শান্তিতে থাকুন আপনি।”

মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ায় অস্ত্রোপচারের পর গত ১১ নভেম্বর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন। তবে বাড়ি যাওয়ার অনুমতি মেলেনি। মদ্যপান সংক্রান্ত সমস্যার কারণে সরাসরি তাঁকে বুয়েনস আয়ার্সের একটি পুনর্বাসন কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। গত সপ্তাহদুয়েক ধরে সেখানেই ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুর সংবাদ আসার পরেই আর্জেন্টিনার জুড়ে শোকের ছায়া নেমে আসে। তার বাড়ির সামনে ভিড় করেন অসংখ্য ফুটবলপ্রেমী মানুষ।

ভারতীয় সময় বুধবার রাত দশটা নাগাদ তার মৃত্যুর খবর এসেছে। কার্যত সমস্ত সংবাদ ম্লান হয়ে গিয়েছিল। তার মৃত্যুর খবরে হাহাকার পড়ে গিয়েছে ফুটবল বিশ্বে। তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে আর্জেন্টিনা। রাস্তায় রাস্তায় তার ছবি লাগানো রয়েছে। তার মৃত্যুতে গভীর শোকাহত ফুটবল সম্রাট পেলে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।