মেডিকেল কলেজে দুর্গাপুজো বাতিল করা হল, জানালো ছাত্ররা

ফোর্থ পিলার

কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দুর্গাপুজো হচ্ছে না। বার্তা দিয়ে এই কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। মেডিকেল কলেজ পড়ুয়ারা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সাধারণ মানুষের কাছে ভুল বার্তা যাচ্ছে এই পুজো নিয়ে। করোনা ভাইরাস সচেতনতার বার্তা দিতেই শেষপর্যন্ত এই পুজো থেকে সরে আসা হচ্ছে। ৮ দিন আগে পুজো বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রতিমার বায়না, মণ্ডপ তৈরির কাজ সবই হয়ে গিয়েছিল। তারপরও এই সিদ্ধান্ত।

পড়ুয়াদের বক্তব্য, সাধারণ মানুষের কাছে ভুল বার্তা যাচ্ছে। বিভিন্ন বিষয়ে কথা হচ্ছে। মেডিকেল কলেজে পুজো হলে করোনা ভাইরাস আরও বেশি করে ছড়াবে। সংক্রমণ বেড়ে যাবে। এই কথা উঠে আসছে। সব কিছু মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত। যদিও পড়ুয়াদের মধ্যে কিছুটা হতাশা এসেছে শেষ মুহূর্তে পুজো বাতিল হওয়ার ঘটনায়।

কৃষ্ণনগর থেকে প্রতিমা আসছে৷ অনেক আগেই বায়না হয়ে গিয়েছিল প্রতিমা। দ্বিতীয়ার দিন দেবী মণ্ডপে প্রবেশ করতেন। মণ্ডপের কাজ এই মুহূর্তে দ্রুতগতিতে চলছিল। ৫ লক্ষ টাকা বাজেট ছিল এই দুর্গাপুজোর। চাঁদা তোলা হচ্ছিল চিকিৎসক-নার্স স্বাস্থ্যকর্মীদের থেকে। করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসা হচ্ছে এই হাসপাতালে। সেখানে কি করে দুর্গাপুজো করা যেতে পারে? এই প্রশ্ন উঠেছে। শুধু তাই নয়, ডক্টরস ফোরাম থেকে এবার দুর্গাপুজো উৎসব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করা হয়েছে। সাধারণ মানুষকে না আটকালে করোনা পরিস্থিতি আয়ত্বের বাইরে চলে যাবে। প্রশাসন নির্দিষ্ট নির্দেশিকা দিয়ে সম্পূর্ণ সর্তকতা অবলম্বন করুন। এই দাবি করা হচ্ছে।

এর মধ্যে কি করে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুর্গাপুজো করা যেতে পারে? সেই প্রশ্ন ওঠে। হাসপাতালের একটি অংশ এই পুজোর বিপক্ষে। তবে প্রকাশ্য বিরোধ কোনও পক্ষ চাইছে না। উদ্যোক্তারা শুরুতে জানিয়েছিলেন, কোনওভাবেই চিকিৎসকরা পুজোতে শামিল হতে পারেন না। পরিষেবার কাজেই তাদের থাকতে হয়। এবার করোনা ভাইরাস আবহে পরিস্থিতি আরও জটিল। তারা পারবেন না কোথাও গিয়ে দুর্গাপুজো দেখতে।

প্রশাসন, সরকার সমস্ত জায়গা থেকেই অনুমতি মিলেছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যায়। সেগুলি খতিয়ে দেখা হবে। সরকারি নির্দেশিকা মেনে নেই এই পুজো হবে বলে খবর। কিন্তু তারপরও বিতর্ক পিছু ছাড়ছিল না। সব কিছু বিবেচনা করে পুজো বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।