রাজ্যে ৮৪২৬ জন করোনা আক্রান্ত, কলকাতায় সংক্রামিত ২,২১১ জন

ফোর্থ পিলার

রাজ্যের করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি উদ্বেগজনকই রয়েছে। এদিনও প্রায় সাড়ে আট হাজার করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। পরিস্থিতি আয়ত্তের মধ্যে আনার চেষ্টা চলছে। দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা। মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন। রাজ্যে স্কুল বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগামী কাল থেকে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, জরুরি ভিত্তিতে আরও বেশি করে হাসপাতালগুলিতে বেডের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর করোনা ভাইরাসের তথ্য দিয়েছে সোমবার বিকেলে। গত ২৪ ঘন্টায় ৮৪২৬ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ৩৮ জন মারা গিয়েছেন একদিনে। মৃত্যুর সংখ্যা গতকালও একই ছিল। এদিন সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪৬০৪ জন। রাজ্যে এই নিয়ে মোট করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০,৬০৬। রাজ্যে দুই হাজার করোনা আক্রান্ত আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন। এই কথা মুখ্যমন্ত্রী নিজে জানিয়েছেন।

রাজ্যে মোট করোনায় সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ লক্ষ চার হাজার ৩২৯। মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লক্ষ ৬৮ হাজার ৩৫৩ জন। টেস্টের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে একই অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২ হাজারের সামান্য বেশি করোনা টেস্ট হয়েছে। রাজ্যে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। ৫৩ হাজারের বেশি করোনা আক্রান্তের চিকিৎসা চলছে এই মুহূর্তে রাজ্যে। শহর কলকাতায় একদিনে আক্রান্ত ২,২১১ জন।

সংক্রমণের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। একদিনে ১,৮০১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ৫২২। হাওড়ায় ৫২৭ জন আক্রান্ত। হুগলিতে একদিনে আক্রান্ত ৪৪০ জন। মালদায় দৈনিক সংক্রমণ বেড়েছে। এই জেলায় একদিনে আক্রান্ত ৪৩৫ জন। লকডাউন, নাইট কার্ফু হচ্ছে না রাজ্যে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চাইছেন না সেই পরিস্থিতি। সাধারণ মানুষদের মধ্যে সচেতনতা আরও বাড়ানো হবে। এই বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।