রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়ানো হোক, চাইছেন অধ্যক্ষরা

ফোর্থ পিলার

করোনা ভাইরাস আবহে রেজিস্ট্রেশনের সমস্ত কাজকর্ম নিখুঁতভাবে করে ওঠা সম্ভব হচ্ছে না। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন কাজ সম্পন্ন নাও হতে পারে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে এই বিষয়ে বলা হচ্ছে। কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের রেজিস্ট্রেশন চলছে। আরও সময় রেজিস্ট্রেশন করার জন্য বাড়ানো উচিত বলে মনে করছেন বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষরা। সেই বিষয়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে আবেদনও করা হয়েছে বলে খবর।

কলেজের ভর্তির প্রক্রিয়া অনলাইনেই হয়েছে। এই বছর কলেজ বন্ধ। পড়ুয়ারা অনলাইনে ক্লাস করছেন। শুধু তাই নয়, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের রেজিস্ট্রেশন এবার অনলাইনে নথিভুক্ত করা হচ্ছে। ১৩ নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে এই প্রক্রিয়া। ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে এই কাজ। কিন্তু এখানেই তৈরি হয়েছে একাধিক সমস্যা। সব ক্ষেত্রে সার্ভারে নথি ঠিকমতো আপলোড হচ্ছে না। কোথাও ফর্ম ফিলাপ করতে সমস্যা হচ্ছে।

অধ্যক্ষরা জানাচ্ছেন, রেজিস্ট্রেশনের জন্য সময়সীমা বাড়ানো উচিত। না হলে এই কাজ শেষ করা যাবে না। পড়ুয়াদের নথিপত্রের সঙ্গে সেলফ এটাস্টেট করে দিতে হবে। সেক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছে। সমস্ত নথি মিলিয়ে রেজিস্ট্রেশন তৈরি হবে। পরে কলেজ শুরু হলে যদি দেখা যায় নথি কোথাও মিলছে না, সূত্রে সমস্যা রয়েছে। তাহলে সেই পড়ুয়ার রেজিস্ট্রেশন বাতিল হয়ে যাবে। কাজেই চাপ থাকতে যথেষ্ট।

সাধারণত রেজিস্ট্রেশনের সময় ভেরিফাই করা হয় সমস্ত নথি। কোথাও ভুলচুক হলে তা শুধরে দেওয়া হয়। অনলাইন ভেরিফিকেশনে সেই সমস্যা থেকে যাচ্ছে। তাই সমস্যা পরবর্তীকালে পড়ুয়াদের হতে পারে। সে কারণেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে রেজিস্ট্রেশনের সময়সীমা বাড়ানোর অনুরোধ করা হচ্ছে।

আগামি ডিসেম্বর মাসে রাজ্যে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে। পাঠদান শুরু হয়ে যাবে। এ কথা ঘোষণা হয়েছে। পরিস্থিতির উপর এখন নজর রাখা প্রয়োজন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।