শপথ অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত বুদ্ধদেব ও সৌরভ, আর কারা আসছেন?

ফোর্থ পিলার

আগামী কাল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিচ্ছেন। বেলা পৌনে এগারোটা নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তিনি শপথ নেবেন। তৃতীয়বারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন। রাজ্যের করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে অত্যন্ত ছোট করে হচ্ছে এই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর এই বিষয়ে আগেই সবুজ সঙ্কেত দিয়েছেন।

কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে আগামী কালের অনুষ্ঠানে। এছাড়াও বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। বুদ্ধবাবু অসুস্থ, তিনি আসবেন না। একথা পরিষ্কার। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কি? সেই বিষয়ে কোনও তথ্য এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান, কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরীকে। বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা, বিজেপি সাংসদ তথা রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে আমন্ত্রণ করা হয়েছে। বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুকেও থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে। তৃণমূলের তরফে হাজির থাকবেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি, সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর।

তারকা সাংসদ দেব এবং শতাব্দী রায়কেও আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। ২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেছিলেন। সেবার চাঁদের হাট ছিল। আমন্ত্রিতদের তালিকা বহু। রাজ্যের স্বনামধন্য ব্যক্তিদের ডাকা হয়েছিল। বামফ্রন্টের তরফের উপস্থিত ছিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য বিমান বসু ও সূর্যকান্ত মিশ্র। এবার করোনা পরিস্থিতিতে অন্যান্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।