সমলিঙ্গের বিয়ে মূল্যবোধ বিরোধী, সায় নেই কেন্দ্রের

ফোর্থ পিলার

সমলিঙ্গের বিয়ে ভারতে সম্ভব নয়। এই আইনি স্বীকৃতি দিতে চাইছে না কেন্দ্র। দিল্লি হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা উঠেছিল এই বিষয়ে। সেখানেই সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা এই কথা জানিয়েছেন। তার বক্তব্য, আমাদের সামাজিক মূল্যবোধ সমলিঙ্গের বিয়েকে স্বীকৃতি দেয় না। এই বক্তব্য প্রকাশিত হতে যথেষ্ট সমালোচনা শুরু হয়েছে। সমলিঙ্গের মানুষদের মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে। অনেকেই একসঙ্গে বৈবাহিক জীবনে থাকতে চান। কিন্তু এক্ষেত্রে আইন এক বড় বাধা।

২০১৮ সালে সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছিল, সমকামিতা দণ্ডনীয় অপরাধ নয়। ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৭ নম্বর ধারায় সমকামিতাকে অপরাধ বলে জানানো হয়েছিল। সেটি অসাংবিধানিক বলে রায় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা সেই বক্তব্য সামনে নিয়ে এসেছেন আদালতের।তিনি দাবি করেছেন, সমকামিতার ওপর থেকে অপরাধের তকমা তুলে নিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। এর থেকে বেশি কিছু জানানো হয়নি।

সমকামীদের বিয়ে এই বিষয়ক মামলাটি উঠেছিল আদালতে। এই জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন অভিজিৎ আয়ার মিত্র, গোপীশংকর এম, জি উর্বশী, গীতা ঠন্ডানির মতো সমকামীদের অধিকার প্রসঙ্গে লড়াই করে যাওয়া মানুষজন। মুখ্য বিচারপতি ডিএন পটেল ও বিচারপতি প্রতীক জালানের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলা রয়েছে। সমলিঙ্গের বিয়ে আসলে দুজনের মধ্যে প্রতিশ্রুতি। তার থেকে বেশি কিছু নয়। এই কথা জানিয়েছেন তুষার মেহেতা।

আবেদনকারীরা আদালতে জানিয়েছিলেন, সুপ্রিম কোর্ট এই সম্পর্ককে বৈধতা দিয়েছে। বহু সমকামী মানুষ সঙ্গী হিসেবে একে অপরকে বেছে নিচ্ছেন। তারা একসঙ্গে দম্পতি হিসেবে থাকতে গেলেই বাধার সামনে পড়ছেন। মানুষের জীবনের সাম্য ও অধিকারের গুরুত্ব হারাচ্ছে। সেই হিসেবেই সমলিঙ্গে বিয়ে এই বিষয়টি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত দ্রুত আবেদন জানানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।