সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বাড়ল ৫ ডিগ্রি, সপ্তাহের শেষে নামবে পারদ

ফোর্থ পিলার

এবারের শীত রীতিমতো ভেলকি দেখাচ্ছে। স্বাভাবিকের থেকে তাপমাত্রা নেমে যাচ্ছে। আবার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বদলে যাচ্ছে পরিস্থিতি। মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল স্বাভাবিক। বুধবার তাই বেড়ে দাঁড়িয়ে গেল ৫ ডিগ্রির বেশি। ঘন কুয়াশায় কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের আকাশ ঘিরে রয়েছে। দৃশ্যমানতা কমে গিয়েছে অনেকটাই। চারিদিকে যেন থম মেরে গিয়েছে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, বুধবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের বেশি বেড়ে গেল স্বাভাবিকের থেকে। মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। বুধবার সেই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯.২ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫.৯ ডিগি সেন্টিগ্রেড, স্বাভাবিক। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেড়েছে অনেকটাই। গতকাল বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতার সর্বোচ্চ পরিমাণ ছিল ৯৮ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৫৮ শতাংশ। বৃষ্টি হয়নি।

বুধবার সকাল থেকেই দেখা গিয়েছে ঘন কুয়াশায় ঢেকে রয়েছে চারপাশ। কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া সম্পূর্ণ বদলে যাচ্ছে। সকালে গোটা এলাকা ছেয়ে গিয়েছিল কুয়াশায়। বুধবার সারাদিন মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়া থাকবে। একথা জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। রোদের তেজ নেই বললেই চলে। ঠান্ডা হাওয়ার বয়ে চলা সোমবার থেকেই কমতে শুরু করেছিল। বুধবার সকাল থেকে উধাও ঠান্ডা হাওয়ার পরশ। কিন্তু কেন এই পরিস্থিতি তৈরি হল?

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, উত্তর-পশ্চিম ভারত থেকে ঠান্ডা হাওয়া বইছে। পাশাপাশি বঙ্গোপসাগর থেকে জলীয় বাষ্পপূর্ণ বাতাস ঢুকছে। দুই বাতাসের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষ চলছে। পূবালী হওয়া এবার জিতে গিয়েছে। তাই কিছুটা কমজোর হয়ে গিয়েছে কনকনে ঠান্ডা বাতাস। পুবালী হাওয়ার জেরে ফিরে এসেছে অস্বস্তি ও ঘন কুয়াশা। বৃহস্পতিবারের পর থেকে তাপমাত্রার পারদ আবার নামবে। এই কথা জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

এবার শীতকাল রীতিমতো ভেলকি দেখাচ্ছে। পৌষমাস ঠান্ডা- গরমেই কেটেছে। শীত প্রায় বিদায় নেওয়ার অবস্থায় ছিল। আবার মাঘমাসে সে ফিরে এসেছে বঙ্গে। মাঘ মাসে শীতের আমেজ ভালো অনুভূত হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।