সিনেমা হলে ১৫ অক্টোবর ফের মুক্তি পাচ্ছে পি এম নরেন্দ্র মোদি

ফোর্থ পিলার

১৫ অক্টোবর সিনেমা হল খুলছে। গোটা দেশে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক একাধিক নির্দেশিকা জারি করেছে সিনেমা হল খোলার বিষয়ে। দর্শকরা সিনেমা হলে টিকিট কেটে যাবেন। এই মুহূর্তে কোনও নতুন ছবি প্রকাশ হচ্ছে না। তবে তার মধ্যেই প্রেক্ষাগৃহে ফিরে আসছে ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’। গত বছর ভোটের আগে দেশে প্রধানমন্ত্রীর বায়োপিক তৈরি হয়েছিল। বিতর্কের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল এই সিনেমা। আরও একবার আনলক ৫ পর্যায়ে এই সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে প্রেক্ষাগৃহে।

সিনেমার প্রযোজক সন্দীপ সিং জানিয়েছেন, করোনাবভাইরাস আবহে শেষপর্যন্ত সিনেমা হল খুলছে। দর্শকদের কাছে এটি এক পরম পাওয়া। সে কারণেই আরও একবার নরেন্দ্র মোদির বায়োপিক মুক্তি পাচ্ছে। হিসেব মতো দর্শকদের কাছে এটি একটি নিবেদন। প্রযোজক আরও জানিয়েছেন, নরেন্দ্র মোদি ভারতের অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী গতবারের লোকসভা ভোটের ফল সে কথাই জানিয়েছে। তাই দর্শকরা প্রধানমন্ত্রীর জীবন ইতিহাস জানবে। সে কারণেই আরও একবার এই সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে।

গত বছর ২৪ মে এই সিনেমা মুক্তি পেয়েছিল। ভারতবর্ষে তখন ভোটের আবহাওয়া। সিনেমাটি মুক্তি পাওয়া উচিত কিনা তা নিয়ে মামলা পর্যন্ত হয়। আদালত একাধিক বিষয় বিবেচনা করে ছবি মুক্তিতে অনুমতি দিয়েছিল। প্রথম দিনেই ২.৮৮ কোটি টাকা ব্যবসা করেছিল এই সিনেমা। তারপরে বেশ কিছুদিন এই সিনেমা চলেছিল প্রেক্ষাগৃহে। বিরোধীরা অভিযোগ করেছিল সিনেমার মাধ্যমে ভোটকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন নরেন্দ্র মোদি। বিজেপি এক নোংরা রাজনীতি করছে সিনেমা মুক্তি করে।

প্রযোজকের সুরেই উচ্ছ্বাস ধরা পড়েছে পরিচালকের কণ্ঠেও। ছবিতে প্রধান ভূমিকায় রয়েছেন বলিউড তারকা বিবেক ওবেরয়। এছাড়াও বোমান ইরানি , বরখা বিস্ত সেনগুপ্ত , জরিনা ওয়াহাব রয়েছেন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। দর্শন কুমার , রাজেন্দ্র গুপ্ত , অঞ্জন শ্রীবাস্তব প্রমুখ তারকাও অভিনয় করেছিলেন। আজই জানা গিয়েছে, আগামী ১৫ অক্টোবর এই সিনেমা মুক্তি পাবে। কেন্দ্রীয় সরকারে থেকে আরও একবার নরেন্দ্র মোদির জীবন কাহিনী প্রচার করা হচ্ছে। একথাও জানাচ্ছেন বিরোধীরা। এবার সিনেমা হলে কতটা দর্শককে সিনেমা টানতে পারে? এখন দেখার বিষয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।