সিয়াচেনে আবার তুষারঝড়, মারা গেলেন দুই জওয়ান

ফোর্থ পিলার

সিয়াচেনে আবারও তুষারঝড়। আর তার জেরে দুই জওয়ান মারা গেলেন। একমাসে পরপর দুবার এই ঘটনা ঘটল। ভারতবর্ষের সব থেকে দুর্গম স্থান সিয়াচেনে সেনাবাহিনীর জওয়ানরা শনিবার সকালে তারা টহল দিচ্ছিলেন। সে সময় এই ঘটনা ঘটে।

সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, ১৮ হাজার ফুট উঁচুতে চলছিল টহলদারি। দক্ষিণ প্রান্তে শুরু হয়ে যায় বরফের ঝড়। মুহূর্তে পরিস্থিতি প্রতিকূল হয়ে পড়ে। বরফের নিচে চাপা পড়ে যান জওয়ানরা। ক্যাম্প থেকে অন্যান্যরা এসে উদ্ধার কাজে হাত লাগান। উদ্ধারের জন্য চলে আসে সেনা হেলিকপ্টারও। দুর্ঘটনাস্থল বিবেচনা করে শুরু হয় বরফের মধ্যেই তল্লাশি অভিযান। কিছু জওয়ানকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। তবে দুজন আরও বরফের নিচে চলে যান। শেষপর্যন্ত উদ্ধার করা গেলেও ততক্ষণে তারা প্রাণ হারিয়েছেন।

সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, হাইপোথার্মিয়ায় আক্রান্ত হয়ে তারা মারা গিয়েছেন। সাধারণত বরফের নিচে চাপা পড়লে সাধারণ মানুষ হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হন। এক্ষেত্রে শরীরের তাপমাত্রা খুব দ্রুত নেমে যায়। আর তাপমাত্রা তৈরি হয় না। অক্সিজেন কমে যায় শরীরে। কিছু সময় পরেই মারা যায় যে কোনও প্রানী। এর আগে গত ১৯ নভেম্বর ঠিক একইভাবে তুষারঝড় হয়েছিল সিয়াচেনে। চার জওয়ান ও দুজন মালবাহক একইভাবে মারা গিয়েছিলেন। প্রতিবার শীতে সিয়াচেনে দুর্গম বরফের প্রান্তে পাহারা দেওয়ার সময় এই ভাবেই মারা যান একাধিক সেনা জওয়ান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।