সুজাপুরে বিস্ফোরণে মৃতদের পরিবারকে ২ লক্ষ ও আহতদের ৫০ হাজার টাকা সাহায্যের ঘোষণা

ফোর্থ পিলার

মালদার সুজাপুরে প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটেছে। পাঁচজন মারা গিয়েছেন। আরও ৫ জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রাজ্য সরকার ক্ষতিপূরণের কথা ঘোষণা করেছে। মৃতদের পরিবার পিছু ২ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। দুর্ঘটনায় জখমদের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। ঘটনাস্থলে পৌঁছান পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

রাজ্যের সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে এই দুর্ঘটনা নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন সরকারি সাহায্যের কথা। প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। পরবর্তী পরিস্থিতির দিকে সরকারের নজর থাকবে। দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পরেই পুলিশ সুপার সহ প্রশাসনিক আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিলেন। হেলিকপ্টার করে মালদায় পৌঁছন ফিরহাদ হাকিম। তিনি ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন।

দুর্ঘটনায় জখম পাঁচজনকে দ্রুত উদ্ধার করা হয়েছিল। তাদের মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। চিকিৎসকরা আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। কিভাবে এই বিস্ফোরণ ঘটল তা নিয়ে এখনও পুরো পরিষ্কার কারণ পাওয়া যায়নি। প্লাস্টিক তৈরি ক্রাশার মেশিনে বিস্ফোরণ হয়। গোটা এলাকা কেঁপে উঠেছিল সে সময়। কারখানাটি সম্পূর্ণ ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কালিয়াচক সুজাপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে একটি কারখানা রয়েছে। কারখানায় প্লাস্টিক থেকে দানা তৈরির কাজ হয়। অন্যান্য দিনের মতো বৃহস্পতিবার কাজ চলছিল। বেলা সাড়ে ১১ টা নাগাদ কারখানায় বিস্ফোরণ ঘটে। গোটা এলাকা কার্যত কেঁপে ওঠে সেই বিস্ফোরণে। প্রত্যেকেই আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন। সম্বিৎ ফিরে দেখা যায় ওই কারখানাটি প্রায় সম্পূর্ণ ভগ্নপ্রায় অবস্থায়। অর্থাৎ বিস্ফোরণ সেখানে ঘটেছে। ভয়াবহতা তখন ওই এলাকাজুড়ে।

আর্তনাদ শোনা যাচ্ছে শ্রমিকদের। স্থানীয়রা উদ্ধার কাজে হাত লাগায়। জানা গিয়েছে, বেশ কিছু শ্রমিকের শরীরের অংশ বিস্ফোরণে ছিটকে গিয়েছে। ১০০ থেকে ২০০ মিটার দূরে পাওয়া গিয়েছে শরীরের অংশ। ঘটনাস্থলে পাঁচজন মারা গিয়েছে। ইটের দেওয়াল সম্পূর্ণ ভেঙে গিয়েছে। চারিদিকে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে বিভিন্ন অংশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।