সোনার দর আরও বাড়ার আশঙ্কা, দুশ্চিন্তায় বাজার

ফোর্থ পিলার

সোনার দাম বাড়ায় কোনও খামতি নেই। প্রতিদিন দাম বাড়ছে নিয়ম করে। গয়নার চাহিদা কার্যত তলানিতে। গয়না শিল্প এই মুহূর্তে অন্ধকারে। কিন্তু সোনার দাম ভারতে বেড়েই চলেছে। ইতিমধ্যেই জিএসটি সমেত ১০ গ্রাম পাকা সোনার দাম ৫০ হাজার টাকা পেরিয়েছে। আগামী দিনে এই দাম আরও বাড়বে। এমনটাই জানাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।

চলতি বছরের শুরু থেকে সোনার দাম কার্যত লাফিয়ে বেড়েছে। করোনা ভাইরাস আর্থিক অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এই অবস্থায় সোনার উপর লগ্নি করা হচ্ছে। পাশাপাশি বহু দেশের সরকার গত আড়াই তিন বছর ধরে সোনা কিনে রেখেছে। তার ফলে বাজারে সোনার এক আকাল তৈরি হয়েছে। কার্যত এই বাজার ম্যানিপুলেট করা বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের। পাশাপাশি আমেরিকা এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ফান্ড মাধ্যমে সোনায় লগ্নি গত সাত মাসে বেড়েছে। গত চার মাসে ৭৩৪ টন সোনা কিনেছেন লগ্নিকারীরা। ফলে সোনা নিয়ে কার্যত কালোবাজারি তৈরি হয়েছে বলে মত একটা বড় অংশের।

আগামী পাঁচ মাসের মধ্যে সোনার দাম আরও ৫ হাজার টাকা বেড়ে যেতে পারে। এমন আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। এই মুহূর্তে জিএসটি কর সবকিছু দিয়ে ১০ গ্রাম পাকা সোনার দাম সাড়ে ৫১ হাজার টাকা পেরিয়েছে। একেই ভারতে মন্দার বাজার চলছে। সাধারণ মানুষের হাতে অর্থ সীমিত রয়েছে বলে অনুমান। কিভাবে এই বাজার নতুন করে উঠতে পারে? সে প্রসঙ্গে দিশাহীন ওয়াকিবহাল মহল। বহু সংস্থাই তাদের একাধিক আউটলেট বন্ধ করে রেখেছে। কর্মী ছাঁটাই হয়েছে বহু জায়গাতেই।

উৎসবের মাস আসতে আর বেশি দেরি নেই। গতবছর ধনতেরাসের সময় সোনা কেনার হিরিক কার্যত ছিল না। দোকানের কর্মচারীরা কার্যত মাছি তাড়িয়েছেন সেপ্টেম্বর মাস থেকে। ধনতেরাসের দিন কিছুটা বাজার উঠেছিল। তারপর ফের সেই তিমিরে। বিয়ের মরসুম এলেও সোনার গয়না বানানোর হিড়িক তেমন দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। এক আশঙ্কার মেঘ তৈরি হয়েছে এই শিল্পে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।