হাসপাতালে ধর্ষিত করোনা আক্রান্ত, গ্রেফতার অভিযুক্ত পুরুষ নার্স

ফোর্থ পিলার

করোনা আক্রান্ত মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল হাসপাতালের এক পুরুষ নার্সের বিরুদ্ধে। ঘটনার পরে সেই মহিলার অসুস্থতা বাড়তে থাকে। এমনকি তাকে ভেন্টিলেশনেও দেওয়া হয়। তবুও হল না শেষরক্ষা। ২৪ ঘন্টার মধ্যেই মারা গেলেন সেই মহিলা। এই ঘটনার জেরে অভিযুক্ত নার্সকে গ্রেফতার করেছেন পুলিশ। এই সমস্যা মধ্যপ্রদেশের ভোপালে।

পুলিশ জানিয়েছে, ৪৩ বছরের এক করোনা আক্রান্ত মহিলা ভোপাল মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানেই তাকে এক পুরুষ নার্স গত মাসের ৬ তারিখে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। মহিলার শারীরিক অবনতি হওয়ায় ভেন্টিলেশনে দেওয়া হয়। তবে ২৪ ঘন্টা যেতে না যেতেই তার মৃত্যু হয়। তদন্তকারীরা বলেছেন “মৃত্যুর আগে ওই মহিলা সমস্ত ঘটনা খুলে বলেন এক চিকিৎসকের কাছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই অভিযোগ দায়ের করেন পুলিশ। গ্রেফতার হয় সেই পুরুষ নার্স সন্তোষ আহিরওয়ার।”

পুলিশের এক কর্তা জানিয়েছেন, মহিলার ইচ্ছা ছিল এই ঘটনাটিকে প্রকাশ্যে না আনার। তাই তার নামও প্রকাশ করা হয়নি, এতদিন তদন্তও চুপিসারে চলছিল। কিন্তু এখন সংবাদমাধ্যমের জেরে তা প্রকাশ্যে আসে। এমনকি জানা যায় ওই মহিলা ১৯৮৪ সালে ভোপাল গ্যাস দুর্ঘটনায় কোনওক্রমে নিজেকে বাঁচাতে পেরেছিলেন। এবারে হয়তো এই মারণব্যাধি করোনা থেকেও নিজেকে বাঁচাতে পারতেন। কিন্তু এই নৃশংসতার জেরে শেষ রক্ষা হলো না।

পুলিশরা আরও জানান, ওই সন্তোষ নামক পুরুষ নার্সটির বিরুদ্ধে এর আগেও বহুবার শ্লীলতাহানীর অভিযোগে ওঠে। এমনকি অন ডিউটিতে থাকাকালিন মদ্যপান অবস্থায় পাওয়া গেছে। তবে কেন ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনও উপযুক্ত পদক্ষেপ নেননি ওই পুরুষ নার্সের বিরুদ্ধে? উঠেছে সেই প্রশ্নও। এখন পুরুষ নার্সটি ভোপাল সেন্ট্রাল জেলে রয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।