২৫ তারিখ পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে পামেলা ও দুই সঙ্গী

ফোর্থ পিলার

কোকেন কাণ্ডে জড়িত পামেলা গোস্বামী আগামী ২৫ তারিখ পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে থাকবেন। আলিপুর আদালতে বিচারক এই রায় দিয়েছেন। আজ শনিবার দুপুরে পামেলা গোস্বামী ও তার দুই সঙ্গীকে আদালতে তোলা হয়েছিল। পামেলা ও সঙ্গীদের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হয়েছে। এই দাবি জানিয়েছেন তাদের পক্ষের আইনজীবীরা।

নির্দিষ্ট কোনও অভিযোগ কারোর বিরুদ্ধে তোলা হয়নি। বিজেপির নেতৃত্ব প্রকাশ্যে এই বিষয় নিয়ে মন্তব্য করছেন না। অনেকেই মনে করছেন পামেলাকে চক্রান্ত করে ফাঁসানো হল। সরকার এই ঘটনা চক্রান্ত করেছে। তবে পামেলা আদালতে এদিন বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন। তিনি সিআইডি তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। গোটা ঘটনার জন্য তবে বিচারকের সামনে এইরকম কোনও দাবি তোলা হয়নি। রাকেশ সিং সম্পর্কেও আইনজীবীদের তরফে কিছু বলা হচ্ছে না।

দীর্ঘদিন ধরেই পুলিশের কাছে খবর ছিল কোকেন সহ অন্যান্য নিষিদ্ধ মাদকের কারবার চালাচ্ছিলেন এই বিজেপি নেত্রী। শেষপর্যন্ত তাকে হাতেনাতে ধরা হল। বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় এই প্রসঙ্গে তেমন কোনও বক্তব্য রাখেননি। আদালতের উপর ভরশা রয়েছে। সত্যি কথা প্রকাশিত হবে। জানিয়েছেন তিনি। অন্য একটি সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, পামেলার বাবা-মা পুলিশের কাছে এই বিষয়ে আগেই অভিযোগ জানিয়েছিলেন। মেয়ে বিপথে চলে যাচ্ছে। এই কথা তাদের মনে হয়েছিল।

পুলিশ গোটা বিষয় নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে। পুলিশের দাবি, ধৃতদের কাছ থেকে ৯০ গ্রামের কিছু বেশি কোকেন উদ্ধার হয়েছে শুক্রবার। সেই কোকেনের বাজার মূল্য আনুমানিক ১০ লক্ষ টাকা। মাদকের নমুনা পরীক্ষার জন্য ফরেনসিকে পাঠানো হয়েছে। পামেলা গোস্বামীর সঙ্গে তার সঙ্গী প্রবীর কুমার দে ও সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারাও বিজেপি যুব মোর্চার সঙ্গে যুক্ত। প্রবীর যুব মোর্চার নেতা। পামেলা সাধারণ সম্পাদিকা৷

এদিন গাড়ি থেকে নামিয়ে আদালতের মধ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল পামেলাকে। সেইসময় সাংবাদিকদের দেখে চিৎকার করে ওঠেন পামেলা। রাকেশ সিং সম্পর্কে একাধিক অভিযোগ করতে থাকেন তিনি। পামেলা বলেন, “আমি চাই সিআইডি তদন্ত হোক। আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত হয়েছে। আগে রাকেশ সিং গ্রেফতার হোক। কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিং গ্রেফতার হোক।” এই কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে পামেলাকে টানতে টানতে পুলিশকর্মীরা নিয়ে যায়। তাকে কোর্টরুমের ভেতরে সকলের অলক্ষ্যে নিয়ে যাওয়া হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।