৯০ লক্ষ পেরিয়েছে করোনা আক্রান্ত, একদিনে ৪৫ হাজার

ফোর্থ পিলার

ভারতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দৈনিক হার আবার কিছুটা কমলো। গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে ৪৫ হাজার করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। গতকাল এই সংখ্যা বেড়েছিল। গত অক্টোবর মাস থেকেই সংক্রমণের সংখ্যা কমছে। পাশাপাশি বেড়েছে সুস্থ হওয়ার হার। মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে অনেকটাই। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, কখনও টেস্টের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। তাই সংক্রমণের সংখ্যা সেই অর্থে বোঝা যাচ্ছে না।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত তথ্য প্রকাশ করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ হাজার আক্রান্ত দেশে। সুস্থ হওয়ার সংখ্যা তার থেকে বেশি। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গিয়েছেন ৫০১ জন। এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাস পরীক্ষায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারতবর্ষ। প্রথম স্থানে আমেরিক। গতকাল দেশে ১১ লক্ষ করোনা ভাইরাস টেস্ট হয়েছে। প্রতিদিন গড়ে ১১ থেকে সাড়ে ১১ লক্ষ টেস্ট হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছিল, দৈনিক টেস্টের লক্ষ্যমাত্রা ১৫ লক্ষ করতে হবে। সেই গণ্ডি পেরনো সব ক্ষেত্রে সম্ভব হচ্ছে না।

দেশে মোট করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০ লক্ষ ৯৫ হাজার ৮০০ – এর বেশি। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৫ লক্ষের বেশি মানুষ। এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাস অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা চার লক্ষ ৪১ হাজার প্রায়। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১ লক্ষ ৩৩ হাজার পেরিয়ে গিয়েছে। সুস্থতার হার ৯৪ শতাংশ এই মুহূর্তে। গোটা দেশে মৃত্যুর হার কমে দাঁড়িয়েছে ১.৪৬ শতাংশ।

রাজধানী দিল্লি নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ছে। দিল্লিতে গত ২৪ ঘন্টায় গড়ে ছয় হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় একদিনে মৃত্যু হয়েছে ১১০ জনের। টেস্টের সংখ্যা আরও বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। দিল্লি হাইকোর্ট কেজরিওয়াল সরকারকে ভর্ৎসনা করেছে পরিস্থিতির জন্য। তবে লকডাউন দিল্লিতে কার্যকরী হবে না। এই কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। মাস্ক না পরে বেরোলে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে সাধারণ মানুষের। দিল্লি সরকার এই কথা ঘোষণা করেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।